খাবারে বিষক্রিয়ার জেরে অসুস্থ হয়ে পড়লেন ৩৫জন। মঙ্গলবার সকালে সবংয়ের চাউলকুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের কেদলিভেড়ি গ্রামের ঘটনা। সোমবার রাত থেকেই বমি, পেট ব্যথার উপসর্গে ভুগতে শুরু করেন গ্রামের বাসিন্দারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার দুপুরে গ্রামের বাসিন্দা মন্টু বেরার বাড়িতে মেয়ে বিয়ের পাকা দেখা উপলক্ষে ছিল ভোজের আয়োজন। মেনুতে ছিল ভাত, ডাল, তরকারি, চিংড়ি ও মাংস। দুপুরে ভোজে নিমন্ত্রণ করা হয়েছিল গ্রামের লোকেদের। রাতে একে-একে অসুস্থ হতে শুরু করেন গ্রামবাসী ও মন্টুর পরিজনেরা। খবর যায় স্বাস্থ্য দফতরে। এ দিন সকালে আক্রান্ত ৩৫জনের মধ্যে গুরুতর অসুস্থ ২৮জনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

মন্টু বেরা বলেন, “পূর্ব মেদিনীপুর থেকে ছেলের বাড়ির লোক মেয়েকে দেখতে এসেছিল। সেই উপলক্ষে খাওয়াদাওয়া হয়েছিল। গ্রামের লোকেরাও খেয়েছিল। মাংস ও চিংড়ি টাটকা ছিল। কিন্তু এমনটা কীভাবে হল বুঝতে পারছি না।” এ দিন গ্রামে গিয়েছিল জেলা স্বাস্থ্য দফতরের এক প্রতিনিধিদল। সেখানে খাদ্যে বিষক্রিয়া কীভাবে এড়ানো সম্ভব তা নিয়ে একটি সচেতনতা শিবিরের আয়োজন করা হয়। জেলার সংক্রমিত রোগের নোডাল অফিসার তথা উপ-মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক রবীন্দ্রনাথ প্রধান বলেন, “খাদ্যে বিষক্রিয়ার জেরে এই ঘটনা ঘটেছে। চিকিৎসাধীন সকলেই সুস্থ রয়েছেন। আমরা ওখানে সচেতনতা শিবিরের।”