• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দলবদলে বিতর্ক

main
প্রিয়াঙ্কার হাতে দলীয় পতাকা তুলে িদচ্ছেন বিরবাহা সরেন। নিজস্ব চিত্র

নাবালিকা নির্যাতনে অভিযুক্ত বিজেপির এক প্রাক্তন নেতার স্ত্রীকে দলে নিয়ে বিতর্কে জড়ালেন ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী বিরবাহা সরেন। 

বৃহস্পতিবার বিকেলে ঝাড়গ্রাম শহরের ফেডারেশন ভবনে শিলদা অঞ্চলের প্রায় ৪৫ জন মহিলা বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেন বলে তৃণমূলের তরফে দাবি করা হয়। দলে যোগদানকারীদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন বিরবাহা। তবে যোগদান পর্ব মিটতেই শাসকদলের অন্দরে একাংশের মধ্যে শুরু হয় অসন্তোষ। কারণ এদিন যোগদানকারী মহিলাদের নেতৃত্বে ছিলেন প্রিয়াঙ্কা মণ্ডল। 

উল্লেখ্য, প্রিয়াঙ্কার স্বামী চিন্ময় মণ্ডল গত ২ ডিসেম্বর রাতে এক নাবালিকাকে নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেফতার হন। পকসো আইনে চিন্ময়ের বিরুদ্ধে মামলা রুজু হয়। কয়েক মাস জেলে থাকার পরে সম্প্রতি চিন্ময় আদালত থেকে শর্তাধীন জামিনে ছাড়া পেয়েছেন। তবে আদালতের নির্দেশে নিজের এলাকায় ফিরতে পারেননি তিনি। এদিন যোগদান পর্ব চলার সময় তৃণমূলের তরফে দাবি করা হয়, প্রিয়াঙ্কা বিজেপির তফসিলি মোর্চার জেলা সম্পাদক ছিলেন। যদিও বিজেপির শিলদা মণ্ডলের নেতা পার্থসারথি হালদার বলেন, ‘‘প্রিয়াঙ্কার স্বামী চিন্ময় মণ্ডল এক সময়ে বিজেপির তফসিলি মোর্চার জে‌লা সভাপতি ছিলেন। গত নভেম্বরে চিন্ময়ের পদের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। এরপর চিন্ময় নাবালিকা নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেফতার হন। সেই কারণে তাঁকে দল থেকে বহিষ্কারও করা হয়। পদে থাকা তো দূরের কথা, চিন্ময়ের স্ত্রী বিজেপির সদস্যই নন।’’ 

তবে এই প্রসঙ্গে জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী বিরবাহা সরেন অবশ্য বলছেন, ‘‘স্বামী অভিযুক্ত হলে তার দায় স্ত্রী কেন নেবেন? মহিলাদের কী স্বাধীনতা বলে কিছু নেই!’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন