• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ভারতীর মিছিলে বাধা, পাল্টা তৃণমূল অফিস ভাঙচুর

rally
(বাঁদিকে)বিজেপির বাইক মিছিল।(ডানদিকে)ভাঙচুর তৃণমূলের কার্যালয়ে। রবিবার। নিজস্ব চিত্র।

‘বিক্ষুব্ধ’ তৃণমূল নেতা শুভেন্দু অধিকারীকে দলে রাখতে বোঝানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে শাসক দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। এমন  সুযোগে শুভেন্দুর জেলায় লাগাতার কর্মসূচি নিয়েছে বিজেপি নেতৃত্ব। রবিবার বিকেলে বিজেপি নেত্রী ভারতী ঘোষের নেতৃত্বে বাইক মিছিলকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার বাধল ভগবানপুর-২ ব্লকে। ভাঙচুর হল তৃণমূল কার্যালয়। পাল্টা, দলীয় কর্মীদের মিছিল লক্ষ্য করে ইট ছোড়ার অভিযোগ উঠেছে শাসকদলের বিরুদ্ধে। সংঘর্যে দু’পক্ষেরই বেশ কয়েক জন  জখম হয়েছেন। 

রবিবার বিকেলে হেঁড়িয়া থেকে বিজেপির একটি বাইক মিছিল শুরু হয়। ব্যক্তিগত গাড়িতে ওই মিছিলে ছিলেন বিজেপির রাজ্য সহ-সভাপতি ভারতী ঘোষ। তাঁর দাবি, ‘‘রাস্তায় গাছের গুঁড়ি ফেলে তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা বাইক মিছিল আটকানোর চেষ্টা করছিল। পরপর তিনবার মিছিল আটকানো হয়।’’ এরপর বিজেপি কর্মীদের মোটর বাইক মিছিল মাধাখালি বাসস্ট্যান্ডে ঢোকার সময় একতারপুরের কাছে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে বিজেপি ও তৃণমূল কর্মীরা। কয়েকজন বিজেপি কর্মী অভিযোগ করেন, তাঁদের বাইক মিছিল লক্ষ্য করে ইট ছোড়া হয়। ইটের আঘাতে দলের  কয়েকজন কর্মীর পা এবং হাত জখম হয়েছে। এরপর উত্তেজিত হয়ে বিজেপি কর্মীরা রাস্তার পাশে তৃণমূলের একটি অঞ্চল কার্যালয়ে হামলা চালায়। কার্যালয়ের ভিতরে থাকা বেশ কিছু কম্বল পুড়িয়ে দেওয়া হয়। তাদের বেশ কয়েকজন কর্মীকে মারধরও করা হয় বলে তৃণমূলের অভিযোগ। গোলমালকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। খবর পেয়ে ভূপতিনগর থানা এবং হেঁড়িয়া তদন্ত কেন্দ্র থেকে বিরাট পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছলে পুলিশের সঙ্গেও বিজেপি কর্মীদের কিছুক্ষণ ধস্তা-ধস্তি হয়। সন্ধ্যা নাগাদ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

এদিনের অশান্তি নিয়ে ব্লক তৃণমূল সভাপতি মানব পড়ুয়া বলেন, ‘‘প্রশাসনের আগাম অনুমতি নিয়ে দলীয় সভা চলাকালীন বাইক মিছিল থেকে বিজেপি কর্মীরা আমাদের কর্মীদের উপরে হামলা চালায়। সশস্ত্র হামলায় আমাদের দলের তিনজন কর্মী আহত হয়েছেন। তাঁদের তমলুক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুর চালানো হয়। বেশ কিছু কম্বল পুড়িয়ে দিয়েছে বিজেপি কর্মীরা।’’

পাল্টা শাসকদলের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে বিজেপি জেলা নেতৃত্ব। দলের জেলা (কাঁথি) সভাপতি অনুপ চক্রবর্তী বলেন, ‘‘ভারতী ঘোষের নেতৃত্বে বাইক মিছিল চলাকালীন তৃণমূলের লোকেরাই মিছিলো ইট ছোড়ে। আমাদের কয়েকজন কর্মী জখম হয়েছেন। প্রতিবাদে তৃণমূলের বিক্ষুব্ধরাই তাদের দলীয় কার্যালয় ভেঙেছে।’’ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গ্রামীণ) বিদিত রাজ ভুনদেশ বলেন, ‘‘কোনও অশান্তির খবর জানা নেই। খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন