• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কেরল থেকে ঘরে ফিরলেন শ্রমিকেরা, স্বস্তি পরিবারে

Nabanna
নবান্ন। ফাইল চিত্র

দুঃস্বপ্ন কাটিয়ে বাড়ি ফিরলেন খেজুরি-১ ব্লকের বাহারগঞ্জের ৫৫ জন যুবক।

কেরলে কাজ করতে গিয়ে দু’মাস ধরে বেতন না পেয়ে আটকে ছিলেন ওই শ্রমিকেরা। শেষ পর্যন্ত পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে সোমবার ঘরে ফিরলেন তাঁরা। সঙ্গে এক মাসের বেতন।

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বাহারগঞ্জের ওই যুবকেরা কাজ করতে গিয়েছিলেন কেরলের কোয়াট্টামে। সেখানে মেডিক্যাল গ্লাভস প্রস্তুত কারখানায় কাজ করতেন তাঁরা। কিন্তু গত দু’মাস ধরে তাঁদের বেতন দেওয়া হচ্ছিল না বলে অভিযোগ। ওই সংস্থার বিরুদ্ধে সেখানকার থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে প্রথমে তারা অভিযোগ নিতে চায়নি বলে ওই শ্রমিকদের দাবি। নিরুপায় হয়ে ওই যুবকদের পরিবারের লোকেরা খেজুরির বিধায়ক রণজিৎ মণ্ডলের কাছে তাঁদের বাড়িতে ফিরিয়ে আনার জন্য আবেদন জানায়। সেইমতো সোমবার ঘরে ফেরেন ওই যুবকেরা।

বাড়ি ফিরে রাজকুমার মুনিয়ান নামে ওই যুবকদের একজন বলেন, ‘‘ অনেক কষ্টে বকেয়া বেতন হিসেবে আমরা ৬ লক্ষ টাকা পেয়েছি। তারপর সকলে বাড়ি ফিরে এসেছি। তবে, এখনও অর্ধেক টাকা বাকি। সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে ওই টাকা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।’’ প্রতারিত ওই যুবকের পরিবারের সদস্য সোমেশ চন্দ্র দাস বলেন, ‘‘ওরা ওখানে না খেতে পেয়ে চরম অস্থিরতায় দিন কাটাচ্ছিল। সোমবার বাড়ি ফিরে আসায় সকলেই স্বস্তি পেয়েছে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন