• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘পাশে আছি’, নন্দীগ্রামে গিয়ে অভয়-আশ্বাস শুভেন্দুর

Help
শনিবার নন্দীগ্রামে শুভেন্দু।

ঘূর্ণিঝড় 'আমপানের দাপটে লন্ডভন্ড জমি রক্ষা আন্দোলনের আঁতুড়ঘর নন্দীগ্রাম। ঝড়ের পরদিন  নন্দীগ্রাম-১ ব্লক অফিসে গিয়ে দুর্গতদের কাছে দ্রুত ত্রাণ পৌঁছে দেওয়া ও এলাকা স্বাভাবিক করার বিষয়ে প্রশাসনিক আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠক করেন পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। শুক্রবার পরিস্থিতি সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে নন্দীগ্রামের দুর্গত এলাকাগুলি পরিদর্শনে যান এলাকার  বিধায়ক তথা  মন্ত্রী শুভেন্দু। সেখানে দুর্গতদের ত্রাণ তুলে দিয়ে পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

এদিন  নন্দীগ্রাম ১ ব্লকের নাকচিরাচর ও সোনাচূড়ায় যান মন্ত্রী। কথা বলেন ক্ষতিগ্রস্তদের সাথে। দুর্গতদের হাতে শুভেন্দু তুলে দেন ত্রিপল ও খাদ্য সামগ্রী। ইদ উপলক্ষে এলাকার সংখ্যালঘু  পরিবারগুলির হাতে শুভেন্দু তুলে দেন নতুন বস্ত্র ও খাদ্য সামগ্রী। শুভেন্দু বলেন, ‘‘পানীয় জলের ভীষণ সঙ্কট দেখা দিয়েছে। আমি পঞ্চায়েতের প্রধানদের বলছি জেনারেটর ভাড়া করে সাব মার্সিবল পাম্প চালিয়ে পানীয় জলের ব্যবস্থা করতে। পঞ্চায়েতের তহবিলে টাকা না থাকলে টাকা আমি দেব। শিবিরে থাকা মানুষদের দুবেলা খাবার ও একবার টিফিন দিতে বলেছি। যাঁরা আশ্রয় শিবির থেকে বাড়ি ফিরবেন তাঁদের দুটো  করে ত্রিপল ও খাদ্য সামগ্রীর প্যাকেট দেওয়া হবে।" 

শুভেন্দু আরও বলেন, ‘‘পানের বরজ,ঘর বাড়ি,মৎস্য চাষ,আনাজ চাষ যা যা ক্ষতি হয়েছে, আপনারা তার ছবি তুলে ক্ষতিপূরণের আবেদন লিপিবদ্ধ করুন। মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন এর আগে যেভাবে ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন, এবারও সেভাবে পাবেন। আমি আপনাদের বন্ধু। আপনাদের সঙ্গে আছি।’’

নন্দীগ্রামের মূল রাস্তাগুলি থেকে গাছ কেটে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করা হলেও গ্রামের ভেতরে এখনও অনেক জায়গায় গাছ পড়ে রয়েছে। এদিনও জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দল কাজ করেছে।  পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসক পার্থ ঘোষ বলেন, ‘‘নন্দীগ্রামের ক্ষয়ক্ষতির হিসাব চলছে। এখনও পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট তৈরি হয়নি।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন