লোকাল ট্রেন থেকে স্টেশনে নামার পরেই শুরু হয়েছিল প্রসব যন্ত্রণা। পরে প্ল্যাটফর্মেই পুত্রসন্তানের জন্ম দিলেন ওই মহিলা। মা-ছেলে দু’জনেই সুস্থ রয়েছেন। 

রবিবার সকালে এই ঘটনা ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুুরের খড়্গপুর স্টেশনে। রেল সূত্রে খবর, ওই মহিলা ও সদ্যোজাত খড়্গপুরে রেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। পার্বতী ঘোড়ই নামে ওই মহিলার বাড়ি খড়্গপুর গ্রামীণ থানা এলাকায়। বিশেষ কাজে একাই খড়্গপুর শহরে আসছিলেন তিনি। হাওড়া-মেদিনীপুর লোকাল থেকে খড়্গপুর স্টেশনে নামার পরেই তাঁর প্রসব যন্ত্রণা ওঠে। আশপাশের লোকজন বিষয়টি রেল পুলিশের নজরে আনেন। তড়িঘড়ি পার্বতীর কাছে পৌঁছয় রেল পুলিশ। 

চলে আসেন মহিলা আরপিএফ-ও। তাঁদের তত্ত্বাবধানে প্ল্যাটফর্মেই পুত্রসন্তানের জন্ম দেন পার্বতী। কাপড় দিয়ে প্ল্যাটফর্মের একটি অংশ ঘিরে দেওয়া হয়েছিল। ঘেরা জায়গাতেই সন্তান প্রসব করেন বছর তিরিশের ওই যুবতী। পরে তাঁকে এবং সদ্যোজাতকে খড়্গপুর রেল হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করা হয়। 

ঘটনার কথা মানছে রেল। দক্ষিণ-পূর্ব রেলের খড়্গপুর ডিভিশনের পরামর্শদাতা কমিটির সদস্য সঞ্জয় হাজরার কথায়, ‘‘লোকাল ট্রেনে এক মহিলা খড়্গপুর স্টেশনে নামার পরে প্রসব যন্ত্রণা অনুভব করেন। মহিলা আরপিএফের সহযোগিতায় ওই মহিলা প্ল্যাটফর্মে সন্তানের জন্ম দেন। পরে দু’জনকে খড়্গপুর রেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। দু’জনই এখন সুস্থ রয়েছেন।’’