সম্পর্কের টানাপড়েন। স্বামী-স্ত্রীর বিবাদে প্রাণ গেল দেড় বছরের শিশুর। গোয়ালতোড়ের কুশকাঠি গ্রামে স্ত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, শনিবার সন্ধ্যায় কুশকাঠি গ্রামে ঘরে স্বামী কানাই মুর্মুর সঙ্গে স্ত্রী পানমণি মুর্মুর বিবাদ বাধে। রবিবার কানাই হঠাৎই লাঠি নিয়ে চড়াও হয় স্ত্রী-র উপর। লাঠির ঘা পড়ে স্ত্রীর কোলে থাকা দেড় বছরের শিশুপুত্র সাগুনের উপর। রবিবার জখম শিশুপুত্রকে নিয়ে মা হাসপাতালে নিয়ে যান। ঘরে ফিরে স্বামীর সামনে অসুস্থ সাগুনকে রেখে পুকুরে স্নান করতে যান পানমণি। তাঁর কথায়, ‘‘এসে দেখি, সাগুন ঘরের সামনে কুয়োয় পড়ে গিয়েছে। তাকে তোলা হলেও বাঁচানো যায়নি।’’ কে কুয়োয় ফেলল সাগুনকে? স্পষ্ট করেননি পানমণি। তিনি থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। লিখিত অভিযোগপত্রেও পানমণি জানাননি কীভাবে কুয়োয় প়়ড়ল তাঁদের সন্তান। পুলিশের কাছে পানমণি জানিয়েছেন, সন্দেহ স্বামীর দিকেই। পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে। গড়বেতা আদালত কানাইকে ১৪ দিনের জন্য জেল হেফাজতে পাঠিয়েছে। পুলিশ সুপার আলোক রাজোরিয়া বলেন, ‘‘শিশু মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্ত বাবাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’’