বন্ধ থাকা ট্রমা কেয়ার ইউনিট ফের চালু হল খড়্গপুর মহকুমা হাসপাতালে। তবে আগের মতোই চিকিৎসক, নার্স, আইসিইউ ছাড়াই। ফলে, পরিকাঠামোর অভাবে ওই ইউনিটে আদৌ চিকিৎসা পরিষেবা মিলবে কিনা, তা নিয়ে সংশয় রয়েই যাচ্ছে।

সোমবার খড়্গপুর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দোতলায় ট্রমা কেয়ার ইউনিটটি চালু হয়ে। তবে এখনও নিউরো, ভ্যাসকুলার, সার্জেন ও অস্থি বিশেষজ্ঞ পাওয়া যায়নি। এমনকী ট্রমার চিকিৎসায় প্রাথমিকভাবে প্রয়োজনীয় আইসিইউ চালু করা যায়নি। গত মার্চে এই দশাতেই চালু করা হয়েছিল এই ট্রমা ইউনিট। কিন্তু চিকিৎসা না হওয়ায় তিন মাস না পেরোতেই ঝাঁপ বন্ধ হয়ে যায় ইউনিটের।

এ দিকে নির্বাচনী প্রচারে খড়্গপুরে এসে মুখ্যমন্ত্রী বন্দ্যোপাধ্যায় বলে গিয়েছিলেন, খড়্গপুরে ট্রমা ইউনিট চালু হয়েছে। ফলে, সমালোচনা ঝড় উঠেছিল। চাপে পড়েই এ দিন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ফের এই ইউনিটটি খুলে দেন। আপাতত এই ইউনিটে শুধু হাসপাতালের মহিলা সার্জিক্যাল ও অস্থি বিভাগ স্থানান্তরিত করা ছাড়া অন্য চিকিৎসা চালু করা যায়নি। হাসপাতালের সুপার কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায় বলেন, “ট্রমা ইউনিটে এবার থেকে মহিলাদের  সার্জিক্যাল, অস্থি ও মস্তিস্কে আঘাতের চিকিৎসা করা হবে। কিন্তু পুরোদমে কাজ চালু করতে ন্যূনতম দু’জন চিকিৎসক ও কর্মী প্রয়োজন।’’ এ ব্যাপারে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারি কর্মচারী ফেডারেশনের হাসপাতাল ইউনিটের উপদেষ্টা দিলীপ সরখেলের বক্তব্য, “ট্রমা ইউনিটের বন্ধ দরজা খোলায় আমরা খুশি। এ বার যাতে পুরোদমে ইউনিটটি চালু করা যায় স্বাস্থ্য দফতরে সেই দাবি জানাব।”