শিলিগুড়ির বাস ধরতে গিয়ে ভুলবশত উঠে পড়েছিলেন বহরমপুরের বাসে। সেখান থেকে কোনও ভাবে ডোমকলে পৌঁছেছিলেন বছর বিয়াল্লিশের এক মহিলা। সেখানে সহায়-সম্বলহীন অবস্থায় এখানে সেখানে ঘুরতে দেখে স্থানীয় হরিহরপাড়ার বাসিন্দা আকবর শেখ তাঁকে বাড়িতে থাকতে দেন।

দেখতে দেখতে কেটে গিয়েছে প্রায় কুড়ি দিন। বিষয়টি অজানা নয় পুলিশ-প্রশাসন থেকে শুরু করে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার।
কিন্তু, এত দিনেও বাড়ি ফিরতে পারেননি তিনি!

স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার কর্মী নার্গিস তানজিমা বলেন, ‘মধ্য বয়সী ওই মহিলা নিজের নাম ডালিয়া বিবি বলে জানিয়েছেন। জলপাইগুড়ির শামুকতলা মোড় থেকে শিলিগুড়ি যেতে গিয়ে কোনও ভাবে বহরমপুর চলে এসেছেন তিনি। তাঁর ছেলে শিলিগুড়িতে কোনও মিলে কর্মরত বলেও জানিয়েছেন। শামুকতলা মোড় থেকে ভ্যানে কিছু দূর গেলেই তাঁর বাড়ি— সে কথাই বলছেন বারবার।’’ আকবরের কথায়, তিনি করিমবাবু নামে কোনও চা বাগানের মালিকের বাড়িতে কাজ করতেন বলে জানিয়েছেন। কেন তাঁকে বাড়ি ফেরানো যাচ্ছে না? হরিহরপাড়া থানার ওসি বিভাস মণ্ডলের দাবি, ‘‘ওই মহিলাকে নিজের ঠিকানায় পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করছি। নিজেও জলপাইগুড়ি-সহ বেশ কয়েক’টি থানার সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। কিন্তু, বিষয়টি তেমন এগোয়নি।’’

এ দিকে, বেশ কিছু বাড়ির বাইরে থাকার ফলে ওই মহিলাও বাড়ি ফিরতে উদগ্রীব। সারাক্ষণই আনমনা হয়ে বসে থাকেন। তা জেনে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার কর্মী নার্গিস বলছেন, ‘‘আমরাই সংগঠনগত ভাবে তাঁকে নিজের বাড়িতে পৌঁছানোর ব্যাপারে চেষ্টা করছি।’’ তত দিন তাঁকে সরকারি কোনও হোমে রাখা হতে পারে বলে প্রশাসন জানা গিয়েছে।