• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দিলীপের মুখে সেই সিবিআই

Dilip Ghosh
ফাইল চিত্র।

হেমতাবাদের বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের মৃত্যুর ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবিতে অনড় রাজ্য বিজেপি। রবিবার বিকেলে মালদহে দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিতে এসে ফের সে কথা জানিয়ে দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। 

তিনি বলেন, ‘‘আমরা সিবিআই তদন্ত চাইছি। সুপ্রিম কোর্টে মামলা করা হয়েছে, কোর্ট সেই মামলা নিয়েছে। শুনানি হবে।’’ বিধায়কের মৃত্যু নিয়ে এ দিন তিনি বলেন, ‘‘আমরা জানি এটা হত্যা। এটা কে করেছে, কার চক্রান্ত, কে সুইসাইড নোট লিখে তার পকেটে ভরেছে, তা সাধারণ মানুষের মুখে মুখে, সকলেই জানে। কিন্তু জানে না পুলিশ, এই সরকার জানে না। তাই ঘটনা চাপা দেওয়ার চেষ্টা চলছে। আমার মনে হয় সিবিআই তদন্ত যখন হবে প্রকৃত সত্য সামনে আসবে।’’ দিলীপ জানিয়েছেন, আজ সোমবার তিনি হেমতাবাদের বিধায়কের বাড়িতে গিয়ে পরিবারের সঙ্গে দেখা করবেন। পাশাপাশি দলীয় কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গেও কথাবার্তা বলবেন।

গত ১৩ জুলাই বাড়ির কাছেই ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় দেবেন্দ্রর। এ দিকে, বিধায়কের স্ত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে সিআইডি ইতিমধ্যে দু’জনকে গ্রেফতার করেছে। দিলীপের রাজ্য সরকারের সমালোচনা নিয়ে তৃণমূলের মালদহ জেলার অন্যতম মুখপাত্র শুভময় বসু বলেন, ‘‘উনি মিথ্যা কথা বলেন বেশি। তাই তাঁর কথা আমাদের কাছে গুরুত্বহীন।’’

এ দিন মালদহে সাংবাদিক বৈঠকে বিজেপি রাজ্য সভাপতি বলেন, ‘‘আমফান ঘূর্ণিঝড়ের পর কেন্দ্র তৃণমূল সরকারকে আর্থিক প্যাকেজ দিয়ে সহযোগিতা করেছে। কিন্তু সেই অর্থ ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের কাছে পৌঁছয়নি। করোনা সংক্রমণের মধ্যে রেশন ব্যবস্থা নিয়েও বহু অনিয়ম চলছে। গরিব মানুষেরা রেশন পাচ্ছেন না।’’ এ রাজ্যের কৃষকেরা স্বাবলম্বী হলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দিকে চলে যাবেন, তাই তৃণমূল সরকার কৃষকদের কেন্দ্রের বরাদ্দ অর্থ পাইয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করছে না বলেও এ দিন মন্তব্য করেন দিলীপ। তিনি বলেন, ‘‘করোনা এবং লকডাউন পরিস্থিতির জন্য সাংগঠনিক এবং দলীয় গতিবিধি সীমিত রাখা হয়েছে। তাই জেলায় জেলায় গিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে।’’ যাদবপুর প্রসঙ্গ নিয়ে দিলীপের মন্তব্য, ‘‘যাদবপুরে কী দেশদ্রোহিতার আড্ডা চিরদিন থাকবে? সেখানে রামভক্ত কেউ থাকবে না?’’

এ দিকে, এ দিন বিকেলে পুরাতন মালদহ ব্লকের সাহাপুর পঞ্চায়েত এলাকার একটি বেসরকারি স্কুলে দলীয় কার্যকর্তাদের নিয়ে সাংগঠনিক পর্যালোচনা করেন দিলীপ ঘোষ। ছিলেন বালুরঘাটের সাংসদ সুকান্ত মজুমদার, দলের রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তন বসু, বিজেপির জেলা সভাপতি গোবিন্দচন্দ্র মণ্ডল।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন