মালদহের রামকৃষ্ণ মিশনের কুমারী পুজোয় দেখা গেল রাজনৈতিক সৌজন্যের ছবি। রবিবার সকালে এক সঙ্গে কুমারী পুজো দেখলেন দক্ষিণ মালদহের সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী (ডালু), তৃণমূলের জেলা সভানেত্রী মৌসম নুর এবং বালুরঘাটের বিজেপির সাংসদ সুকান্ত মজুমদার। এক সঙ্গে বসে প্রসাদ খেলেন ডালু ও মৌসম। এ দিন কোতোয়ালি ভবন থেকে আলাদা গাড়িতে মিশনে এসে পৌঁছন দু’জন। তারপরে এক সঙ্গে বসে কুমারী পুজো দেখেন। তখন তাঁদের সঙ্গে সামিল হন বালুরঘাটের বিজেপি সাংসদ সুকান্ত মজুমদার। ডালু বলেন, ‘‘উৎসবে সকলে মিলে সামিল হওয়াই আনন্দের। সুকান্ত বলেন, “এ বারই প্রথম এখানে পুজো দেখা। রাজনৈতিক সৌজন্য বজায় থাকা উচিত।” পুজো দেখার পর ডালু ও মৌসম এক সঙ্গে প্রসাদ খান। মিশনের পুজোয় মাছ ভোগ দেওয়া হয়। সেই প্রসাদ খেয়ে আপ্লুত মৌসম। মৌসম বলেন, “মিশনের পুজো দেখতে প্রতিবারই আসি। রাজনীতি রাজনীতির জায়গায় রয়েছে। উৎসবে সকলে মিলে সামিল হওয়াতেই আনন্দ।” রামকৃষ্ণ মিশনের স্বামী ত্যাগরূপা নন্দ বলেন, ‘‘সকাল পৌনে ছ’টা থেকে আমাদের পুজো শুরু হয়। আমাদের শিশু সদনের ছাত্রী ঐশী চক্রবর্তীকে দেবীরূপে সাজিয়ে নিয়ম নীতি মেনে পুজো করা হয়। এরপরেই সন্ধি পুজো হয়।’’