• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রেলের নির্দেশে উচ্ছেদের আশঙ্কা

Railway
উচ্ছেদের ভয়ে স্টেশন সংলগ্ন কলোনির বাসিন্দারা। নিজস্ব চিত্র

রেলের জমি থেকে সরে যাওয়ার নির্দেশ ঘিরে ক্ষোভ ছড়িয়েছে ডালখোলা শহরের স্টেশন সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, শনিবার উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের কাটিহার ডিভিশনের ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের আধিকারিকেরা ডালখোলায় এসে রেলের জমি খালি করার নির্দেশ দেন। এমন পরিস্থিতিতে উচ্ছেদের আশঙ্কায় রয়েছেন স্টেশন সংলগ্ন এলাকার ৫০টি পরিবার।

বাসিন্দাদের অভিযোগ, পুর্নবাসনের ব্যবস্থা না করে আচমকা এমন উচ্ছেদের নির্দেশে তাঁরা বিপাকে পড়েছেন। শহরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা বিকি মাহাতো, মালতী পাসোয়ান, রাধা ঠাকুর, কালু পাসোয়ান জানান, আচমকা এ ভাবে কোনও বিকল্প ব্যবস্থা না করে তাঁদের জায়গা খালি করতে বলা হয়েছে। নির্দিষ্ট সময়ে জায়গা খালি না করলেও উচ্ছেদের হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়েছে।

রবিবার ওই এলাকার বাসিন্দারা স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলার রিনা সাহার দ্বারস্থ হন। তিনি বলেন, ‘‘সোমবার রেলের কাটিহার শাখার ডিআরএম-কে লিখিত অনুরোধ জানানো হবে যাতে ওই বাসিন্দাদের পুর্নবাসনের ব্যবস্থা না করা পর্যন্ত উচ্ছেদ না করা হয়।’’

এ দিন রেলওয়ে কলোনি এলাকায় যান জেলা বিজেপি সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ি। তিনি বলেন, ‘‘পুরসভার তৃণমূল পরিচালিত বোর্ডের গাফিলতিতে এতগুলি পরিবার সঙ্কটের মুখে পড়েছে। ওই পরিবারগুলির পুর্নবাসনের ব্যবস্থা না করে যাতে উচ্ছেদ না করা হয় তা নিয়ে রেলকে অনুরোধ করা হবে।’’ 

টাউন তৃণমূল সভাপতি তনয় দে বলেন, ‘‘পুরভোটের আগে বিজেপি চক্রান্ত করে এমন কাজ করতে চাইছে। রেলের তরফে কোনও নোটিস দেওয়া হয়নি। পুরসভাকেও কিছু জানানো হয়নি।’’ রেল জানিয়েছে, ওই এলাকায় বেশিরভাগই কাঁচা বাড়ি। তাই রেলের তরফ লিখিত বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়নি। রেল স্টেশনের উন্নয়নের জন্যই এমন পদক্ষেপ করা হচ্ছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন