এ বার ‘কাটমানি’ ফেরতের দাবি ও পঞ্চায়েতের দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযুক্ত গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানকে গ্রেফতারের দাবিতে সরব হলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জ ব্লকের বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েতের ঘটনা। রবিবার সকালে রায়গঞ্জের শিলিগুড়ি মোড়ে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে এক ঘণ্টা বিক্ষোভ দেখান বাসিন্দারা। 

তৃণমূল পরিচালিত বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান লায়লা খাতুন ও তাঁর স্বামী তথা যুব নেতা মনসুর আলমের বিরুদ্ধে বাসিন্দাদের একাংশ সরব হয়ে পথে নামেন। পরে তৃণমূলের রায়গঞ্জের ব্লক সভাপতি পুর্ণেন্দু দে এবং বিডিও রাজু লামা  এসে আশ্বাস দিলে অবরোধ ওঠে। 

স্থানীয়দের একাংশের অভিযোগ, বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েত একাধিক প্রকল্পের কাজ না করে কোটি কোটি টাকা তছরুপ করা হয়েছে। একই ভাবে প্রকল্পের কাজ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে ‘কাটমানি’ নেওয়া হয়েছে। বিক্ষোভকারীরা  এদিন ১০০ দিনের কাজের কাটমানি ফেরতেরও দাবি জানান। বিন্দোলের তৃণমূল প্রাক্তন অঞ্চল সভাপতি খলিলুর রহমান বিক্ষোভ-অবরোধে সামিল ছিলেন। অবরোধের সামিল হন স্থানীয় বিজেপি নেতা প্রাণ বর্মণ, সিপিএমের মুস্তাক আলি ও কংগ্রেসের ফরিদ বক্সও। 

খলিলুর অভিযোগ করেন, ওই গ্রাম পঞ্চায়েতে এন,আর,জি,এস সহ একাধিক প্রকল্পের কাজ না করে টাকা তছরুপ করেছে। এই বিষয়ে ব্লক প্রশাসন এবং জেলা শাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। গত সপ্তাহে প্রধানকে ঘেরাও করা হয়। কিন্তু কোনও সুদত্তর মেলেনি। তিনি অভিযোগ করেন, ‘‘প্রধানের স্বামী ঠিকাদার সংস্থার সঙ্গে যুক্ত। তাঁর স্বামী পঞ্চায়েতের কাজ দেখভাল করেন। প্রধানের স্বামী  কাজ না করে টাকা তুলে নিয়েছেন। গ্রামবাসীদের কাছ থেকে বিভিন্ন প্রকল্প পাইয়ে দেওয়ার নাম করে টাকা তুলেছেন।’’ বাসিন্দাদের অভিযোগ, পুকুর খনন না করে টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে। ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে ট্র্যাক্টর ব্যবহার ও মাস্টার রোলে বেনামী শ্রমিকদের নামে সই করে টাকা তুলে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে প্রধানের বিরুদ্ধে।

এলাকার মানুষের অভিযোগ, প্রায় ১ কোটি ৭৫ লক্ষ  টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠেছে প্রধান সহ কতিপয় সদস্যদের বিরুদ্ধে। 

প্রধান লায়লা খাতুন ও তাঁর স্বামীর মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা হলেও সুইচড অফ থাকায় কথা বলা যায়নি। জেলা তৃণমূল সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল বলেন, ‘‘ওই প্রধানের বিরুদ্ধে দলের কিছু কর্মী অভিযোগ করেছেন। দলের কাছে ওই প্রধান অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তবে প্রশাসনের তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হলে অবশ্যই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’’

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।