• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মালদহে নেতাদের কড়া বার্তা শুভেন্দুর

Suvendu Adhikari
শুভেন্দু অধিকারী

আগামী বিধানসভা ভোটের আর মোটে বছরখানেক বাকি। কিন্তু মালদহে তৃণমূল এখনও গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব এবং দুর্নীতির অভিযোগের চক্র থেকে বার হতে পারছে না। সম্প্রতি রাজ্যের মন্ত্রী তথা দলের মালদহ জেলার ভারপ্রাপ্ত শুভেন্দু অধিকারী একাধিক ভিডিয়ো বৈঠক করেন জেলা নেতাদের সঙ্গে। দলীয় সূত্রে খবর, সেখানে শুভেন্দু একাধিক কড়া প্রশ্ন তুলেছেন। ঘরে বসে নিজেদের মধ্যে গোষ্ঠী কোন্দল চালিয়ে যাওয়ার বদলে মাঠে নেমে রাজ্য সরকারের কাজের প্রচার এবং কেন্দ্রের বিরুদ্ধে জনমত গঠনের কথাও বলেছেন। শেষমেশ ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রয়োজনে জেলায় দলের সংগঠনের দায়িত্ব নতুন হাতে দেওয়ার কথা ভাববেন শীর্ষ নেতৃত্ব।  

আগামী বিধানসভা ভোটের কথা মাথায় রেখে দল এখন জেলা ধরে কর্মসূচি নিচ্ছে, নেতাদের মাঠে নামিয়ে কর্মীদের চাঙ্গা করার চেষ্টা করছে। সেই লক্ষ্যেই গত শুক্রবার ও রবিবার রাতে জেলা নেতাদের ভিডিয়ো বৈঠক ছিল শুভেন্দুর সঙ্গে। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দল পরিচালিত পঞ্চায়েতগুলিতে নানা অনিয়মের অভিযোগ ওঠায় ক্ষুব্ধ পর্যবেক্ষক। আরও জানা গিয়েছে, বিধানসভা ভোটের কথা মাথায় রেখে খুব দ্রুত দলের মালদহ জেলা এবং ব্লক কমিটিগুলি গঠন করার নির্দেশ দেন তিনি। দলীয় সূত্রে খবর, দলের জেলা ও ব্লক কমিটি গঠন নিয়ে সোমবার সন্ধ্যায় মালদহের নুর ম্যানশনে জেলার কয়েক জন নেতৃত্বকে নিয়ে বৈঠক করেন জেলা সভাপতি মৌসম নুর।

জেলায় শুভেন্দুর বৈঠক নিয়ে বিশেষ কেউ মুখ খুলতে চাননি। কিন্তু দলের শীর্ষ সূত্রে জানা গিয়েছে, শুভেন্দু এই বৈঠকে স্পষ্ট জানিয়েছেন, রাজ্যের কাজের প্রচার করতে গ্রামে গ্রামে যেতে হবে। তিনি জানান, করোনা মোকাবিলায় রাজ্য সরকতার যা যা করেছে, তথ্য দিয়ে তা বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার করতে হবে। পাশাপাশি বিজেপি চিনের সঙ্গে যুদ্ধ পরিস্থিতিকে সামনে রেখে রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে চাইছে বলেও সমালোচনা হয় বৈঠকে। সেখানে দলের শীর্ষ সূত্রে বলা হয়, এটা যে দু’পক্ষের মধ্যে তালমিল রেখে করা হচ্ছে, সেটাই তথ্য দিয়ে বারবার তুলে ধরতে হবে। প্রচার করতে হবে। পাশাপাশি শুভেন্দু বলেন, জেলার নেতারা নীচের তলায় বেশি ঘুরলে আর্থিক দুর্নীতি কমবে। তিনি প্রশ্ন তোলন, ‘‘পঞ্চায়েত স্তরে এত অভিযোগ কেন?’’ জেলা সভাপতি মৌসম নুর বলেন, ‘‘এদিন দলের সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে নেতৃত্বদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। এর বেশি কিছু বলা সম্ভব নয়।’’ এই নিয়ে জেলা বিজেপি নেতৃত্ব কিছু বলতে চাননি। তাঁদের কথায়, ‘‘তৃণমূলের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে কিছু বলব না। আগে ওরা প্রচার করুক, তার পরে জবাব দেব।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন