তৃণমূল কর্মী খুনের ঘটনাকে ঘিরে বৃহস্পতিবার ফের উত্তেজনা ছড়াল আলিপুরদুয়ারের তপসিখাতায়৷ ঘটনায় মূল অভিযুক্ত তৃণমূলেরই উপপ্রধান-সহ বাকি অভিযুক্তদের গ্রেফতার না করার অভিযোগ তুলে এ দিন প্রায় দু’ঘণ্টা আলিপুরদুয়ার-ফালাকাটা রাজ্য সড়কে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয়রা৷ বাসিন্দারা জানান, বিক্ষোভে নেতৃত্ব দেন দলেরই স্থানীয় কর্মী-সমর্থকদের একাংশ৷ এ দিকে গোটা ঘটনার জেরে তৃণমূলের রাজ্য নেতৃত্বের নির্দেশে দলের জেলা নেতৃত্ব অভিযুক্ত উপপ্রধান ও গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য-সহ বাকিদের দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷

মঙ্গলবার রাতে আলিপুরদুয়ার শহর থেকে সাত কিলোমিটার দূরে তপসিখাতা বাজারের জয় বাংলা হাটে গুলিবিদ্ধ হয়ে খুন হন তৃণমূল কর্মী তথা এক সময় দলের সহকারী বুথ সভাপতির দায়িত্ব সামলানো ২৫ বছরের তুষার বর্মণ৷ তপসিখাতা যে গ্রাম পঞ্চায়েতের অধীন, সেই পরোরপাড়ের তৃণমূল উপপ্রধান শম্ভু রায়, গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য সোনা রায়-সহ চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে৷ অভিযোগ, দূরসম্পর্কের এক ভাইকে মদের দোকানের ভিতরে মারধর করা হচ্ছে বলে খবর পেয়ে ওই রাতে জয় বাংলা হাটে গিয়েছিলেন তুষার৷ অভিযোগ, সেই সময় অভিযুক্তরা তাঁকেও মারধর করে মাটিতে ফেলে দেন৷ কোমর থেকে বন্দুক বের করে তুষারের মাথায় উপপ্রধান শম্ভু গুলি চালিয়ে দেন বলে অভিযোগ৷

ঘটনার জেরে রাতেই এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়৷ প্রায় পাঁচ ঘণ্টা তুষারের দেহ আটকে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয়রা৷ বুধবারও সকাল থেকে সেখানে চলে উত্তেজনা৷ ঘটনার প্রতিবাদে এলাকাজুড়ে চলে অঘোষিত বন্‌ধ৷ ময়নাতদন্তের পর বিকেলে তুষারের দেহ এলাকায় পৌঁছলে জয় বাংলা হাটের একটি মদের দোকানে ভাঙচুর চালিয়ে আগুন জ্বালিয়ে দেন স্থানীয়রা৷ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে এলাকায় ফের উত্তেজনা ছড়াতে শুরু করে৷ গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য সোনা রায়কে ইতিমধ্যেই পুলিশ গ্রেফতার করলেও, মূল অভিযুক্ত শম্ভু-সহ বাকিদের গ্রেফতারের দাবিতে এ দিনও তপসিখাতায় বন্‌ধ চলে। সকাল ন’টা থেকে ১১টা পর্যন্ত দু’ঘণ্টা ধরে আলিপুরদুয়ার-ফালাকাটা রাজ্য সড়ক অবরোধ করেন স্থানীয়রা৷ রাস্তায় জ্বালানো হয় টায়ার৷ ভাঙচুর চালানো হয় স্থানীয় একটি ক্লাবেও৷ তবে পুলিশ ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে বাকি অভিযুক্তদের গ্রেফতার করার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়৷

তৃণমূলের রাজ্য নেতৃত্বের নির্দেশে জেলা নেতৃত্ব তপসিখাতায় কর্মী খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত উপপ্রধান, গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য-সহ বাকিদের দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷ তৃণমূলের পরোরপাড় অঞ্চল সভাপতি তথা আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের সদস্য রতন মোহান্ত এ দিন বলেন, “রাজ্য নেতৃত্বের সঙ্গে কথা বলার সময় জেলা নেতৃত্ব আমাদের জানিয়েছেন, রবিবারের মধ্যে উপপ্রধান-সহ অভিযুক্ত চারজনকেই দল থেকে বহিষ্কার করা হবে৷” তৃণমূলের আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি মোহন শর্মা বলেন, “গোটা ঘটনাটি নিয়ে দলীয় পর্যায়ে একটি তদন্ত হচ্ছে৷ তবে অভিযুক্ত চারজনকেই দল থেকে বহিষ্কার করা হবে৷”