কখনও ভিন্ রাজ্যে কাজে গিয়ে দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে শ্রমিকের। আবার কখনও আবার নৃশংস ভাবে খুন হয়ে গিয়েছেন কেউ। ফলে মনের মধ্যে আতঙ্ক নিয়েই মালদহ থেকে অন্য রাজ্যে কাজের সন্ধানে পাড়ি দিচ্ছেন শ’য়ে শ’য়ে শ্রমিক। অথচ, ভিনে রাজ্যে যাওয়া শ্রমিকদের সম্পর্কে কোন তথ্যই নেই জেলা প্রশাসন থেকে শুরু করে শ্রম দফতরের কাছে। 

উত্তরপ্রদেশে কার্পেটের কাজে গিয়ে বিস্ফোরণে মালদহের মানিকচকের ন’জনের মৃত্যুর পর ফের প্রশ্ন উঠেছে, কেন ভিন রাজ্যে শ্রমিকদের কাজে যাওয়ার প্রবণতা ঠেকাতে পারছে না প্রশাসন? যদিও প্রশাসনের দাবি, একশো দিনের কাজ-সহ সরকারি একাধিক প্রকল্প রয়েছে। সেই প্রকল্পগুলিতে শ্রমিকদের যুক্ত করার প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে। জেলাশাসক কৌশিক ভট্টাচার্য বলেন, “মালদহ থেকে অনেকেই বাইরে কাজ করতে যান। তাঁদের একটি তালিকা তৈরির চেষ্টা চলছে। একশো দিনের কাজ, স্বনির্ভরতার জন্য ঋণদানের ব্যবস্থা রয়েছে। সেই সব প্রকল্পে জেলার শ্রমিকদের যোগদান বাড়াতে উৎসাহিত করাও শুরু হয়েছে।” 

শ্রম দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, মালদহ জেলার কালিয়াচকের তিনটি ব্লক— হবিবপুর, বামনগোলা, রতুয়া এবং হরিশ্চন্দ্রপুর থেকে প্রচুর মানুষ কাজের জন্য পাড়ি দেন ভিন রাজ্যে। কালিয়াচক, ইংরেজবাজার এবং হবিবপুর ব্লকের সোনার কারিগরেরা যান মুম্বইয়ে। এ ছাড়া রাজমিস্ত্রির কাজেও যান শ্রমিকেরা। কারিগর হোন বা শ্রমিক, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই কোনও না কোনও ঠিকাদার নিয়ে যান তাঁদের। কেউ যান দিল্লি-মুম্বই, কেউ যান উত্তরপ্রদেশ বা কেরল। কেউ আবার অন্যত্র। অসমর্থিত সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলা থেকে প্রায় ৪০ শতাংশ মানুষই কাজের সন্ধানে পাড়ি দেন ভিন্ রাজ্যে। 

সেখান থেকে কী খবর আসে, তার অপেক্ষায় এখন বসে থাকেন বাড়ির লোকজন। ২০১৩ থেকে পরপর এমন ঘটনায় পরিবারগুলির আশঙ্কা বেড়ে গিয়েছে। এক বার মুম্বইয়ে এক বহুতল ধসে মৃত্যু হয় আট শ্রমিকের। আর এক বার নৃশংস ভাবে খুন হয়ে যান আফরাজুল। সেই খুনের ভিডিয়ো তুলে তা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেয় অভিযুক্ত ও তার সাঙ্গোপাঙ্গরা।

আফরাজুলের ঘটনার পর আতঙ্কে জেলার শ্রমিকদের মধ্যে ঘরে ফেরার হিড়িক পড়ে গিয়েছিল। এমন অবস্থায় রাজ্য সরকার থেকে চালু করা হয়েছিল সমর্থন প্রকল্প। সেই প্রকল্পে ভিন্ রাজ্য থেকে ফিরে আসা শ্রমিকদের জন্য ৫০ হাজার টাকা করে দেওয়ার ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু সেই প্রকল্পের আওতায় রাখা হয়নি মালদহকে। তবুও মালদহের হাজার হাজার শ্রমিক প্রশাসনের কাছে গিয়ে আবেদন করেছিলেন। 

মালদহের মতো জেলায় সমর্থন প্রকল্প না থাকায় ক্ষুব্ধ জেলার শ্রমিকেরা। কালিয়াচকের বাসিন্দা নাজিমুল হক বলেন, “মালদহ থেকেই বেশি সংখ্যক শ্রমিক ভিন রাজ্যে কাজ যান। আমাদের জেলার শ্রমিকেরাই দুর্ঘটনায় মারা যান, খুন হন। অথচ, আমাদের জন্য নেই প্রকল্প!” সরকারি বহু প্রকল্প রয়েছে। তবুও কেন ভিন্ রাজ্যে? মানিকচকের মথুরাপুরের বাসিন্দা সইফুদ্দিন আলম বলেন, “একশো দিনের কাজ করে সামান্য টাকা পাওয়া যায়। আর সেই টাকা সঙ্গে সঙ্গে হাতে মেলে না। ভিন্ রাজ্যে কাজে গেলে একসঙ্গে হাতে মোটা অঙ্কের টাকা পাওয়া যায়। তাই ভয় থাকলেও সংসার চালানোর জন্য ছুটতে হয় বাইরে।”