• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বাঁকুড়া মেডিক্যালে আক্রান্ত নার্স, ভর্তি বন্ধ দু’টি ওয়ার্ডে

Bankura Medical
ফাইল চিত্র।

ইন্টার্নের পরে এ বার করোনা-আক্রান্ত হলেন বাঁকুড়া মেডিক্যালের এক নার্স। মেডিসিন ওয়ার্ডে দিন চারেকের ব্যবধানে দু’জন করোনা-‘পজিটিভ’ হয়ে পড়ায় সেখানে রবিবার থেকে রোগী ভর্তি স্থগিত রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মেডিক্যাল কর্তৃপক্ষ। 

শনিবার রাতেই বাঁকুড়া মেডিক্যালের ফিমেল মেডিসিন ওয়ার্ডের নার্সিং-ইন-চার্জ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে গুঞ্জন ছড়ায়। রবিবার এ নিয়ে প্রশ্নের উত্তরে বাঁকুড়া মেডিক্যালের অধ্যক্ষ পার্থপ্রতিম প্রধান বলেন, “হ্যাঁ। নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। পুরুষ ও মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডে নতুন রোগী ভর্তি বন্ধ রাখা হয়েছে। ওই ওয়ার্ডে ভর্তি থাকা সমস্ত রোগীর ধাপে ধাপে করোনা পরীক্ষা হচ্ছে।’’ তাঁর দাবি, হাসপাতালের অন্য ওয়ার্ডগুলির পরিষেবা স্বাভাবিক রয়েছে। 

হাসপাতালের আধিকারিকদের একাংশ জানাচ্ছেন, ওই নার্সের স্বামীও জেলা স্বাস্থ্য দফতরের কর্মী। ফলে আক্রান্ত ইন্টার্ন বা স্বামীর থেকে তিনি সংক্রমিত হতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে। হাসপাতালের এক আধিকারিক বলেন, “আক্রান্ত নার্সের স্বামীর লালারসের নমুনা পরীক্ষার জন্য নেওয়া হয়েছে।” হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, উপসর্গ না থাকায় আক্রান্ত নার্সকে নিজের বাড়িতেই ‘কোয়রান্টিন’ করে রাখা হয়েছে।

বাঁকুড়া মেডিক্যাল সূত্রের দাবি, বুধবার ফিমেল মেডিসিন ওয়ার্ডে কর্তব্যরত এক ইন্টার্নের করোনা ধরা পড়ে। তার পরেই ওই ওয়ার্ডে ভর্তি থাকা রোগীদের লালারস সংগ্রহ শুরু হয়েছিল। শনিবার পর্যন্ত ওই ওয়ার্ডে প্রায় ৯০ জন রোগী ভর্তি ছিলেন। রবিবার রয়েছেন প্রায় ৬০ জন। হাসপাতালের এক আধিকারিক বলেন, “যাঁদের ছুটি দেওয়া হয়েছে, তাঁদের সবার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।” তিনি জানান, পুরুষ মেডিসিন ওয়ার্ডে প্রায় ৭০ জন রোগী ভর্তি আছেন। তাঁদেরও লালারস পরীক্ষা করানো হবে।

বাঁকুড়া জেলা তো বটেই, দক্ষিণবঙ্গের বিস্তীর্ণ এলাকার চিকিৎসার ভরসা এই মেডিক্যাল কলেজ। দূর-দূরান্ত থেকে আসা মানুষজন এ বার কোথায় যাবেন, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। বাঁকুড়া মেডিক্যালের অধ্যক্ষ বলেন, “রোগীদের সমস্যাটি জেলা স্বাস্থ্য দফতরকে জানিয়েছি।” বাঁকুড়া স্বাস্থ্য জেলার মুখ্যস্বাস্থ্য আধিকারিক শ্যামল সরেন বলেন, “ছাতনা আর বড়জোড়া সুপার স্পেশালিটি এবং খাতড়া মহকুমা হাসপাতালকে শনিবার রাতেই তৈরি থাকতে বলা হয়েছে। বাঁকুড়া মেডিক্যালে ভর্তি না হতে পারা রোগীরা সেখানে যেতে পারেন।”

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন