ভিড় ভাঙবে রেকর্ড, দাবি দলের
জেলা বিজেপি সভাপতি রামকৃষ্ণ রায়ের দাবি, প্রধানমন্ত্রীর সভায় প্রায় ২ লক্ষ মানুষের ভিড় জমবে। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলার ৈবিভিন্ন প্রান্ত থেকে কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে আসতে এখনও পর্যন্ত ৮০০টি বাস,  মিনিবাস ও কিছু ছোটগাড়ি ভাড়া করা হয়েছে। 
BJP

ছবি: পিটিআই।

ভোট-প্রচারে জেলায় প্রথম বার পা রাখছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তা নিয়ে উৎসাহ তুঙ্গে জেলার বিজেপি নেতা-কর্মী-সমর্থকদের। বুধবার ইলামবাজারের কামারপাড়ার মাঠে মোদীর জনসভার প্রস্তুতিতেৈ শেষ মুহূর্তের ব্যস্ততা। দলের জেলা নেতৃত্বে দাবি, আগামী কালের সভায় ভিড় সমস্ত রেকর্ড ভাঙবে।

জেলা বিজেপি সভাপতি রামকৃষ্ণ রায়ের দাবি, প্রধানমন্ত্রীর সভায় প্রায় ২ লক্ষ মানুষের ভিড় জমবে। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলার ৈবিভিন্ন প্রান্ত থেকে কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে আসতে এখনও পর্যন্ত ৮০০টি বাস,  মিনিবাস ও কিছু ছোটগাড়ি ভাড়া করা হয়েছে। 

প্রধানমন্ত্রীর সভা ঘিরে আঁটোসাঁটো নিরাপত্তা ব্যবস্থাও। প্রশাসনিক সূত্রে খবর, সভাস্থলে বসানো হয়েছে প্রায় ৬০টি সিসিটিভি ক্যামেরা। মঞ্চের কাছে তিনটি অস্থায়ী হেলিপ্যাডেও বসেছে ক্যামেরা। সভামঞ্চের সামনে থাকবে ১০ হাজার চেয়ার। বসেছে ১০টি জায়ান্ট স্ক্রিন। পুলিশের পাশাপাশি সভা সুষ্ঠু ভাবে পরিচালনা করতে বিজেপিও ৬০০ স্বেচ্ছাসেবক মোতায়েন করছে।

বিজেপি সূত্রে খবর, সভায় হাজির ভিড়ের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে পানীয় জলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ওই মাঠের পিছন দিকে কয়েকটি অস্থায়ী শৌচাগারও তৈরি করা হয়ে। মঞ্চের লাগোয়া একটি বিশ্রামকক্ষ তৈরি করা হয়েছে। সেখানে ইন্টারনেট থেকে শুরু করে অন্য পরিষেহার ব্যবস্থা থাকবে।

মঙ্গলবার সভাস্থল পরিদর্শন করতে যান বিজেপির রাজ্য সম্পাদক প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায়, বীরভূম জেলা পর্যবেক্ষক রাজীব ভৌমিক, রামকৃষ্ণ রায়। এ দিন প্রধানমন্ত্রীর সভাস্থলে নামার মহড়া দিয়ে যায় একটি হেলিকপ্টার।

প্রশাসনিক সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার বেলা ১টা ৪৫ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী কামারপাড়া মাঠের হেলিপ্যাডে নামবেন। সেখান থেকে গাড়িতে পৌঁছবেন মূল মঞ্চে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মঞ্চে থাকবেন কৈলাস বিজয়বর্গি, রূপা গঙ্গোপাধ্যায় ও পূর্ব বর্ধমান, বীরভূম, বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রের দলীয় প্রার্থীরা।

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত