বোলপুরে ‘বাধা’ বিজেপি প্রার্থীকে, ‘গো-ব্যাক’ স্লোগান শুনে থমকে প্রচার
বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী রামপ্রসাদ দাস কঙ্কালীতলা মন্দিরে পুজো দিয়ে মূল মন্দির থেকে বেরোতেই কিছু লোক ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখান।
Ramaprasad

অসন্তোষ: কঙ্কালীতলা মন্দিরের সামনে বিক্ষোভের মুখে বিজেপি প্রার্থী রামপ্রসাদ দাস। ছবি: বিশ্বজিৎ রায়চৌধুরী

পুজো দিয়ে প্রচারে বেরিয়ে বিজেপির প্রার্থী শুনলেন গো-ব্যাক স্লোগান। তার জেরে অসমাপ্ত রইল কঙ্কালীতলায় প্রচার। আর সিউড়িতে পানীয় জলের অভাব নিয়ে ভোটারদের ক্ষোভের কথা শুনলেন তৃণমূল প্রার্থী শতাব্দী রায়।

মঙ্গলবার সকালে প্রথম ঘটনাটি ঘটে কঙ্কালীতলা এলাকায়। বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী রামপ্রসাদ দাস কঙ্কালীতলা মন্দিরে পুজো দিয়ে মূল মন্দির থেকে বেরোতেই কিছু লোক ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখান। এলাকায় তাঁরা তৃণমূলের কর্মী বলে পরিচিত। চলে গো-ব্যাক স্লোগান। অবস্থা বেগতিক দেখে সেখান থেকে বেরিয়ে প্রার্থী কঙ্কালীতলা অঞ্চলের পারুলডাঙা গ্রামে গিয়ে প্রচার শুরু করেন। সেখানেও তাঁকে একই ভাবে তৃণমূলের কর্মীদের বাধার মুখে পড়তে হয় বলে অভিযোগ।

বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন কঙ্কালীতলা মন্দির সংলগ্ন অঞ্চল সহ ১০ থেকে ১২টি গ্রামে ঘোরার কথা ছিল রামপ্রসাদ দাসের। এই কর্মসূচির কথা আগে প্রশাসনকে জানানো হয়েছিল বলেও বিজেপির দাবি। তার পরেও যা হয়েছে তাকে জেলা বিজেপির সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ শিষ্টাচার বিরোধী বলে মনে করেন। তাঁর কথায়, ‘‘এ কঙ্কালীতলায় পুজো দিয়ে প্রচার শুরু করতেই তৃণমূলের কর্মীরা স্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। পারুলডাঙ্গা অঞ্চলেও একই জিনিস করেছে ওরা।’’ তৃণমূল কর্মীরা বিজেপিকে হুমকি দিয়েছে বলেও নেতৃত্বের দাবি। প্রচারে বিরোধীদের বাধা দেওয়া হচ্ছে, এই মর্মে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগও জানাতে চলেছে বিজেপি। প্রার্থী রামপ্রসাদ দাস বলেন, ‘‘মানুষের কাছে ভোট চাইতে গিয়েছিলাম। সেখানে তৃণমূল বাধা দেবে কেন? হুমকির কারণেই মাত্র তিনটি গ্রাম ঘুরে প্রচার শেষ করে দিতে হয়।’’

হুমকি, প্রচারে বাধার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন শাসক দলের কর্মীরা। কঙ্কালীতলা পঞ্চায়েতের উপপ্রধান মহম্মদ ওহিদউদ্দিনের দাবি, ‘‘কারা বিক্ষোভ দেখিয়েছে বলতে পারব না। তবে মানুষ ওদের পাশে নেই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আছেন। তাই হয়তো এই বিক্ষোভ।’’

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত