• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘মাওবাদী’ পোস্টার উদ্ধার, চাপানউতোর

poster
প্রতীকী ছবি।

Advertisement

পুরুলিয়ার বলরামপুরের ঘাটবেড়া এলাকা থেকে সোমবার সকালে উদ্ধার হল সিপিআই (মাওবাদী)-এর নামাঙ্কিত একটি পোস্টার। ঘটনাচক্রে এ দিনই পুরুলিয়ায় মাওবাদী প্রসঙ্গ টেনে রাজনৈতিক চাপান-উতোর চলল বিজেপি এবং তৃণমূলর মধ্যে।

বলরামপুরের ঘাটবেড়া এলাকায় এ দিন সকালে সিপিআই (মাওবাদী) লেখা একটি পোস্টার উদ্ধার হয়। পুলিশ সূত্রের খবর, রাস্তা সংস্কারের একটি বোর্ডে সাঁটানো ছিল সেটি। ‘জল, জঙ্গল, জমি ধ্বংসকারীদের মৃত্যুদণ্ডে’র কথা লেখা ছিল সাদা কাগজে লাল কালিতে। পুলিশ পোস্টারটি খুলে নিয়ে যায়। জেলার পুলিশ সুপার আকাশ মাঘারিয়া জানান, ওই এলাকায় মাওবাদী কার্যকলাপের কোনও খবর তাঁদের কাছে নেই। তবে তদন্ত শুরু হয়েছে।

দুপুরে পুরুলিয়ায় জেলাশাসকের দফতরের সামনে বিজেপির একটি কর্মসূচি ছিল। সেখানে উপস্থিত দলের জেলা সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী তাঁর বক্তব্যে মাওবাদী প্রসঙ্গ 

টেনে আনেন। তাঁর মন্তব্য, ‘‘আমরা আশঙ্কা করছি যে, শুভেন্দু অধিকারীকে (রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী তথা পুরুলিয়া জেলা তৃণমূলের অন্যতম পর্যবেক্ষক)  জঙ্গলমহলের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে ফের মাওবাদীদের জাগিয়ে তোলার জন্য। কারণ, তা হলেই বিজেপিকে জব্দ করা যাবে। অতীতের নানা ঘটনা থেকে আমাদের এই আশঙ্কা। তবে এই আশঙ্কা সত্যি না হলেই ভাল হয়। আমরা শান্তি চাই।’’ 

যদিও শুভেন্দুর প্রতিক্রিয়া, ‘‘রাজনীতিতে নবাগত কেউ এ কথা বলে থাকতে পারে। উনি (বিদ্যাসাগরবাবু) হয়তো আমার সম্পর্কে জানেন না। জানেন না যে, ২০০৯ সাল থেকে আমি ওই শক্তির (মাওবাদী) বিরুদ্ধে লড়াই করেছি। উনি না জানলেও এ কথা জঙ্গলমহলের মানুষ জানেন।’’ তাঁর সংযোজন: ‘‘বলরামপুরেও আমি একাধিক বার গিয়েছি ওই শক্তির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন