পুজোর পরে রেশন কার্ড সংক্রান্ত দ্বিতীয় দফার শিবির শুরু হয়েছে জেলায়। 

প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার থেকে পুরুলিয়া জেলার ২০টি ব্লক ও তিনটি পুরএলাকার শিবির থেকে গ্রাহকদের পরিষেবা দেওয়া শুরু হয়েছে। জেলাশাসক রাহুল মজুমদার জানান, পুজোর আগে যে ভাবে জেলার বিভিন্ন ব্লক ও পুরএলাকায় রেশন কার্ড সংক্রান্ত শিবির হয়েছিল, একই ভাবে এ বারও সে রকম ভাবেই শিবির হচ্ছে।’’

রেশন কার্ডের ত্রুটি সংশোধন, নতুন কার্ডের জন্য আবেদন, রেশন দোকান বদল, কার্ড হারিয়ে গেলে বিকল্প কার্ডের জন্য আবেদন করা-সহ নানা কারণে গত ৯-২৭ সেপ্টেম্বর রেশন কার্ড সংক্রান্ত শিবির হয়।

বুধবার জেলা খাদ্য নিয়ামক শুভ্রজিৎ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘সেপ্টেম্বরের শিবির থেকে ৩ থেকে ৯ নম্বর ফর্মে আবেদন গ্রহণ করা হয়েছিল। এ বার শিবিরে ১০ নম্বর ফর্মও গ্রহণ করা হচ্ছে।’’ তিনি জানান, এ বার শিবির চলবে ৫ থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত।

গতবারের শিবিরে জেলা থেকে ২ লক্ষ ৬৬ হাজারের কিছু বেশি আবেদনপত্র জমা পড়েছিল। যার মধ্যে সব থেকে বেশি রেশন কার্ডে নামের বানান সংশোধনের ৫ নম্বর ফর্মেই বেশি আবেদন এসেছে। 

জেলা খাদ্য নিয়ামক বলেন, ‘‘আগের শিবির থেকে যে সব আবেদন জমা পড়েছে, তা কম্পিউটারে তোলার কাজ প্রায় শেষ। আবেদন খতিয়ে দেখার কাজ চলছে।’’ 

চলতি সপ্তাহে অযোধ্যাপাহাড়ে গিয়েও জেলাশাসককে সেখানকার মানুষের কাছে রেশন নিয়ে অভিযোগ শুনতে হয়েছে। কোথাও দোকান কম দিন খোলা থাকে, তো কোথাও আবার কোনও এক সপ্তাহে মাল তুলতে না পারলে পরের সপ্তাহে তা না দেওয়ার অভিযোগ শোনা গিয়েছে। 

রেশন কার্ড সংশোধনের জন্য প্রশাসন যে ফের শিবির চালু করছে, সেই তথ্য মানুষজনের কাছে পৌঁছে দিতে এলাকায় মাইকে প্রচার করার নির্দেশ দিয়েছেন জেলাশাসক। 

বিডিও (বাঘমুণ্ডি) উৎপল দাস মুহুরী বলেন, ‘‘আমরা রেশন কার্ডের শিবির চালু করা-সহ সচেতনতায় আরও কয়েকটি বিষয়ে এলাকায় প্রচার করছি।’’