• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বাঁকুড়ায় ছাত্রকে বাঁশপেটা শিক্ষকের! অভিযোগ থানায়

Teacher
ছাত্রের হাতে প্লাস্টার। নিজস্ব চিত্র

Advertisement

এক স্কুলছাত্রকে মারধরের অভিযোগ উঠল ওই স্কুলেরই শিক্ষক, সম্পাদক এবং হস্টেলের ওয়ার্ডেন বিরুদ্ধে। অভিযোগকারী বাঁকুড়া শহর লাগোয়া পোয়াবাগানের দামোদরপুরে একটি বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র। কলকাতার বাসিন্দা ওই ছাত্রের অভিযোগ, গত শুক্রবার রাতে হস্টেল থেকে বার করে স্কুলের মাঠে নিয়ে গিয়ে বাঁশ দিয়ে মারধর করা হয়। বৃহস্পতিবার ওই ছাত্রের বাবা বাঁকুড়া সদর থানা এবং ‘চাইল্ড লাইন’-এ অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ অভিযোগ খতিয়ে দেখছে। যদিও অভিযোগ মানেননি স্কুল কর্তৃপক্ষ। তাঁদের পাল্টা দাবি, ওই ছাত্র নানা অনৈতিক কাজে যুক্ত ছিল। 

নিগৃহীত ছাত্র তার পরিবারের অভিযোগ, শুক্রবার মধ্যরাতে ওই ছাত্রকে স্কুলের খেলার মাঠে মারধর করা হয়। বুধবার কাজে ওই স্কুলে যান ছাত্রের বাবা। তার পরে তিনি ছেলের সঙ্গে দেখা করেন। তার বাবার দাবি, ‘‘ছেলের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় চোট হয়েছে। সেগুলি দেখে আমি অবাক হয়ে যাই। ছেলেকে বাঁকুড়া মেডিক্যালে চিকিৎসা করাই। তার পরে থানায় গিয়ে অভিযোগ করি।” তাঁর অভিযোগ, স্কুলের এক শিক্ষক, হস্টেলের ওয়ার্ডেন এবং স্কুলের সম্পাদকই ছেলেকে মারধর করেন।  

এ দিন ‘নিগৃহীত’ ছাত্র ও তার পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন বাঁকুড়া ‘চাইল্ড লাইন’-এর কো-অর্ডিনেটর সজল শীল। পরে সজলবাবু বলেন, “ওই ছাত্রের শরীরে মারাত্মক আঘাত রয়েছে। তার পরিবারের সাথে কথা হয়েছে। ঘটনাটি খতিয়ে দেখছি।” পুলিশ জানিয়েছে, ছাত্রটির মেডিক্যাল রিপোর্ট সংগ্রহ করা হয়েছে।

স্কুল কর্তৃপক্ষ অবশ্য তাঁদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। স্কুল পরিচালন সংস্থার চেয়ারম্যানের প্রতিক্রিয়া “ছোট ঘটনাকে বাড়াবাড়ি করে দেখানো হচ্ছে।’’ তাঁর পাল্টা অভিযোগ, ‘‘ওই ছাত্র নানা অনৈতিক কাজের সঙ্গে যুক্ত ছিল বলে জানা গিয়েছে। দুঃস্থ বলে ওই ছাত্রকে আমি নিখরচায় স্কুলে পড়াই।’’ স্কুলের বিরুদ্ধে ‘মিথ্যা অভিযোগ’ করা হচ্ছে বলে দাবি পরিচাল সমিতির চেয়ারম্যানের। তাঁর তোলা অভিযোগ অস্বীকার করে নিগৃহীত ছাত্রের বাবার প্রশ্ন ‘‘আমার ছেলে কোনও অন্যায় করে থাকলে তাকে স্কুল শাস্তি দিতেই পারে। তবে মাঝরাতে হোস্টেল থেকে বার করে পেটানো কোন ধরনের শাস্তি!’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন
বাছাই খবর

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন