• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

২৩শে খুলছে তারাপীঠ মন্দির

1
তারাপীঠ মন্দির—ফাইল চিত্র

তিন মাসেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পরে অবশেষে দর্শনার্থীদের জন্য খুলছে তারাপীঠ মন্দির। আগামী ২৩ জুন, রথের দিন মন্দির দর্শনার্থীদের জন্য খোলার সিদ্ধান্ত নিল মন্দির কমিটি। 

গত ১ জুন বীরভূম এবং রাজ্যের বেশ কিছু ধর্মস্থানের দরজা দর্শনার্থীদের জন্য খোলা হলেও তারাপীঠ মন্দির খোলেনি। প্রথম দফায় ১৫ জুন পর্যন্ত তারাপীঠ মন্দির বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল মন্দির কমিটি। ১৪ জুন মন্দির কমিটি ফের বৈঠকে বসে মন্দির ২০ জুন পর্যন্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়। শনিবার মন্দির কমিটি তারাপীঠ মন্দির চত্বরে বৈঠকে বসে। বৈঠকে সেবায়েতদের সর্বসম্মতিক্রমে রথের দিন থেকে মন্দির দর্শনার্থীদের জন্য খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে মন্দির কমিটি জানিয়েছে। 

তবে দর্শনের ক্ষেত্রে বেশ কিছু নিয়ম পরিবর্তন করা হয়েছে। মন্দির কমিটির সভাপতি তারাময় মুখোপাধ্যায় এবং সম্পাদক ধ্রুব চট্টোপাধ্যায় এ দিন জানান, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সার্বিক পরিস্থিতির উপরে নজর রেখে মন্দির তিন মাসের বেশি সময় বন্ধ রাখা হয়েছে। এ বার যাবতীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ২৩ তারিখ থেকে মন্দির দর্শনার্থীদের জন্য খোলা হবে। তবে, মন্দিরের গর্ভগৃহে দর্শনার্থীরা প্রবেশ করতে পারবেন না। সেবায়েতরা পুজো করে তাঁদের হাতে দেবেন। 

ভিড় এড়াতে মন্দিরের চাতালে দর্শনার্থীদের জমায়েতও নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ভোগ বা ভাণ্ডারা চাতালে বসে খাওয়া যাবে না বলে মন্দির কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মন্দির দর্শনার্থীদের জন্য খোলা হলেও এ বার ‘মা তারা’র রথ বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন মন্দির কমিটির হিসাবরক্ষক শ্যামল মুখোপাধ্যায়।

দর্শনার্থীদের জন্য মন্দির খোলার আগে সংক্রমণ ঠেকাতে এবং ভিড় এড়াতে বেশ কিছু প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করেছে মন্দির কমিটি। যেমন

১। মন্দির কমিটির অনুরোধে তারাপীঠ রামপুরহাট উন্নয়ন পর্ষদ মন্দিরের পূর্ব, পশ্চিম ও দক্ষিণ প্রান্তে স্যানিটাইজ়ার টানেল বসিয়েছে। ওই টানেলের মধ্যে দিয়ে দর্শনার্থীরা মন্দির চত্বরে প্রবেশ করবেন। প্রবেশের পরে নিরাপত্তারক্ষীরা তিন প্রান্তেই থার্মাল গান দিয়ে দর্শনার্থীদের দেহের তাপমাত্রা পরীক্ষা করবেন। 
২। দর্শনার্থীদের হাত স্যানিটাইজ়ার দিয়ে ধোওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। 
৩। দর্শনার্থীরা প্রবেশ করার পরে ৬ ফুট দূরত্ব বিধি মেনে লাইনে দাঁড় করাবেন নিরাপত্তাকর্মীরা। এর জন্য মন্দির সংলগ্ন জীবিতকুণ্ড ঘাট পর্যন্ত বৃত্তাকার গণ্ডি কাটা হয়েছে। ৪। সকাল-সন্ধ্যায় দুই শিফটে কর্মরত ৫০ জন নিরাপত্তাকর্মীর সুরক্ষার জন্য হাতের গ্লাভস, মাস্ক, ফেস শিল্ড দেবে মন্দির কমিটি। 
৫। মন্দির চত্বরে প্রবেশের জন্য দর্শনার্থীদের মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
৬। বয়স্ক এবং শিশুদের প্রতি বিশেষ নজরদারি করবেন নিরাপত্তাকর্মীরা। 
৭। প্রতিদিন মন্দির স্যানিটাইজ় করা হবে। এর জন্য বিশেষ যন্ত্র কিনেছে মন্দির কমিটি।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন