×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

৩১ জুলাই ২০২১ ই-পেপার

বিনোদন

Amitabh Bachchan: বলিউড তো বটেই, হলিউড এমনকি বাংলা সিনেমাতেও অতিথি শিল্পীর ভূমিকায় ছিলেন অমিতাভ, জানতেন!

নিজস্ব প্রতিবেদন
১৫ জুন ২০২১ ০৯:৫৫
তিনি ‘বিগ বি’। ছবিতে তাঁর উপস্থিতিই যথেষ্ট। আর কিছুই চাই না। এমন একটা ধারণা বলিউডে সম্ভবত আজও বহমান। অমিতাভ সুপারস্টার হিসেবে উদ্ভাসিত হওয়ার পরেই যে এই ধারণা প্রতিষ্ঠা পেয়েছে, এমন কিন্তু বলা যাবে না। কেরিয়ারের শুরু থেকেই নায়কের ভূমিকায় বা প্রধান চরিত্রে অবতীর্ণ হয়েছেন তিনি। পাশাপাশি অতিথি শিল্পী হিসেবেও তাঁর উপস্থিতি কিন্তু কেরিয়ারের প্রায় গোড়া থেকেই।

১৯৬৯ সালে খ্বাজা আহমেদ আব্বাস পরিচালিত ‘সাত হিন্দুস্তানি’ ছবিতে তাঁর আত্মপ্রকাশ। কিন্তু ঠিক পরের বছরই জেমস আইভরি পরিচালিত মার্চেন্ট আইভরি প্রোডাকসন্সের ছবি ‘বম্বে টকি’-তে অতিথি শিল্পীর ভূমিকায় অভিনয় করেন অমিতাভ। এক সাক্ষাৎকারে অমিতাভ  জানিয়েছিলেন, এই ছবির নায়ক শশী কপূরের অনুরোধেই তিনি এই ভূমিকায় নামতে রাজি হন।
Advertisement
হৃষিকেশ মুখোপাধ্যায়ের ১৯৭১ সালের সুপারহিট ছবি ‘গুড্ডি’। সিনেমাপাগল এক কিশোরীর ‘বড়’ হয়ে ওঠার এক মধুর আখ্যান এই ছবি। নায়িকা জয়া ভাদুড়ি, নায়ক শমিত ভঞ্জ। এই ছবিতে নিজের ভূমিকাতেই অভিনয় করেছিলেন অমিতাভ।

১৯৭০-এর দশকে রাগী যুবকের ভূমিকায় অমিতাভের কেরিয়ার জমে ওঠে। তাঁর কথা ভেবেই যেন চিত্রনাট্য লিখিত হতে থাকে। কিন্তু সেই সাফল্যের দশকেও বেশ কিছু ছবিতে অতিথি শিল্পী বা ‘ক্যামিও’ ভূমিকায়  দেখা গিয়েছে তাঁকে। এগুলির মধ্যে বাসু চট্টোপাধ্যায়ের ‘পিয়া কা ঘর’ (১৯৭২) উল্লেখযোগ্য। ওই বছরেই আসপি ইরানি পরিচালিত ‘গরম মশালা’ ছবিতে মুখ দেখান অমিতাভ। কিন্তু ছবির নামলিপিতে তাঁর উল্লেখ ছিল না।
Advertisement
১৯৭২ সালেই আশ্চর্যজনক ভাবে একটি বাংলা ছবিতে অতিথি শিল্পীর ভূমিকায় দেখা যায় অমিতাভকে। ‘জবান’ নামে সেই ছবিটির পরিচালক ছিলেন পলাশ বন্দ্যোপাধ্যায়, নায়ক ছিলেন শমিত ভঞ্জ। অমিতাভ ছাড়াও এই ছবিতে অতিথি শিল্পী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ধর্মেন্দ্র এবং শত্রুঘ্ন সিনহা। নিষিদ্ধ পল্লির এক দালালের ভূমিকায় এ ছবিতে দেখা গিয়েছিল অমিতাভকে।

মাঝে ‘বড়া কবুতর’ (১৯৭৩, পরিচালক দেবেন বর্মা) এবং ‘দোস্ত’ (১৯৭৪, পরিচালক দুলাল গুহ)-এ অতিথি হিসেবে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। তবে ১৯৭৪-এ মেহমুদ পরিচালিত এবং অভিনীত ‘কুঁয়ারা বাপ’ ছবিতে উল্লেখযোগ্য কিন্তু অতিথি উপস্থিতি ছিল অমিতাভের। এই ছবিতে অতিথি হিসেবে মুখ দেখিয়েছিলেন ধর্মেন্দ্র, হেমা মালিনী, সঞ্জীব কুমার, বিনোদ খন্না প্রমুখ তারকারাও।

১৯৭৭-এর ছবি ‘চলা মুরারি হিরো বননে’। পরিচালনা ও মুখ্য ভূমিকায় আসরানি। এই ছবিতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  অমিতাভ। সেই সঙ্গে ছিলেন ধর্মেন্দ্র, হেমা মালিনী, কেষ্ট মুখোপাধ্যায় প্রমুখও।

হৃষিকেশ মুখোপাধ্যায়ের চিরনতুন কমেডি ছবি ‘গোলমাল’। অমল পালেকর, উৎপল দত্ত, বিন্দিয়া গোস্বামী অভিনীত ১৯৭৯ সালের এই ছবিতে নিজের ভূমিকাতেই দেখা গিয়েছিল অতিথি শিল্পী অমিতাভকে।

কেরিয়ারের তুঙ্গ অবস্থাতেও অমিতাভ মাঝে মধ্যেই অতিথি শিল্পী হিসেবে পর্দায় এসেছেন। তবে ১৯৮৩ সালের ছবি ‘অন্ধা কানুন’ (পরিচালনা টি রামা রাও)-এ একটি পার্শ্বচরিত্রে তাঁকে দেখা গিয়েছিল। এই ছবির নায়ক ছিলেন রজনীকান্ত। কিন্তু ছবিতে জান নিসার আখতার খানের ভূমিকায় অমিতাভের উপস্থিতিই এই ছবিকে অন্য মাত্রা দেয়।

১৯৮৭-র ছবি ‘জলওয়া’। এই ছবিতেই ছক ভেঙে একেবারে বাণিজ্যিক নায়কের ভূমিকায় দেখা যায় নাসিরুদ্দিন শাহকে। পঙ্কজ পরাশর পরিচালিত এই ছবির নায়িকা ছিলেন অর্চনা পূরণ সিংহ। এই ছবিতেও নিজের ভূমিকাতেই অতিথি হয়ে দেখা দেন বিগ বি।

কেতন মেহতা পরিচালিত ১৯৮৮-র ছবি ‘হিরো হীরালাল’। বলিউডি বাণিজ্যিক মশলা ছবিকে ব্যঙ্গ করে নির্মিত এই ছবির নায়ক ছিলেন নাসিরুদ্দিন শাহ, নায়িকা সঞ্জনা কপূর। এখানেও নিজের ভূমিকাতেই অতিথি হিসেবে আবির্ভূত হন অমিতাভ।

অভিনেতা জগদীপ ১৯৮৮ সালে পরিচালনা করেন ‘সুরমা ভুপালি’ নামে একটি ছবি। ‘শোলে’ ছবিতে এই নামের এক চরত্রে জগদীপ অভিনয় করেছিলেন। এখান তাঁর পরিচালনায় অতিথি হিসেবে আবির্ভাব ঘটে ‘শোলে’-র ‘জয়’ অমিতাভের। এখানে তিনি এক পুলিশ আধিকারিকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন। এখানে অতিথি শিল্পী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ধর্মেন্দ্র ও রেখাও।

১৯৯০-এর দশকে ‘ক্রোধ’ (১৯৯০), ‘ঘাতক’ (১৯৯৬), ‘বিবি নম্বর ১’ (১৯৯৯) ইত্যাদি ছবিতে তাঁকে অতিথি শিল্পী হিসেবে দেখা গিয়েছে। তবে সে সব তেমন গুরুত্বপূর্ণ ছিল না।

২০০২-এ অর্জুন সাজনানি পরিচালিত ‘অগ্নিবর্ষা’ ছবিতে আবার এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অতিথি হিসেবে আসেন অমিতাভ। পুরাণ-নির্ভর এই ছবিতে দেবরাজ ইন্দ্রের ভূমিকায় দেখা যায় তাঁকে।

যশ চোপড়া পরিচালিত ২০০৪-এর শাহরুখ খান, প্রীতি জিন্টা অভনীত ‘বীর জারা’-য় এক  ক্যামিও চরিত্রে দেখা দেন বিগ বি। ছবিতে নায়কের কাকার ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল তাঁকে।

২০০৫-এর কন্নড় ছবি ‘অম্রুথধারে’ (পরিচালক নাগাথিহাল্লি চন্দ্রশেখর)-তে অতিথি শিল্পী হিসেবে দেখা দেন অমিতাভ।

২০১৩-এ বড় বাজেটের হলিউড ছবি ‘দ্য গ্রেট গ্যাটসবি’-তে এক জুয়াড়ির ভূমিকায় দেখা যায় অমিতাভকে। এই ছবির নায়ক ছিলেন লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও, পরিচালক বাজ লুরম্যান।

২০) এর মাঝে বিভিন্ন ভাষার বেশ কিছু ছবিতে অতিথি হিসেবে দেখা গিয়েছে বিগ বি-কে। সর্বশেষ তাঁকে অতিথি হিসেবে দেখা গিয়েছে সাবির আহমেদ পরিচালিত নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি অভিনীত ২০২০-র ছবি ‘ঘুমকেতু’-তে। সেখানেও নিজের ভূমিকাতেই অভিনয় করেছিলেন বিগ বি।

২০) এর মাঝে বিভিন্ন ভাষার বেশ কিছু ছবিতে অতিথি হিসেবে দেখা গিয়েছে বিগ বি-কে। সর্বশেষ তাঁকে অতিথি হিসেবে দেখা গিয়েছে সাবির আহমেদ পরিচালিত নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি অভিনীত ২০২০-র ছবি ‘ঘুমকেতু’-তে। সেখানেও নিজের ভূমিকাতেই অভিনয় করেছিলেন বিগ বি।