×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২১ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

বিনোদন

মন্দে ভরা ২০২০ খুশি আনল কাদের জীবনে? বিয়ে সারলেন কোন কোন সেলেব

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৫ জানুয়ারি ২০২১ ১১:৩৬
২০২০ সালটা প্রায় ঘরবন্দি হয়েই কেটেছে সকলের। তাতে বেশির ভাগ মানুষের কাছেই জীবন দুর্বিষহ মনে হয়েছে। কিন্তু কারও কারও জীবনে আবার খুশি বয়ে এনেছে এই বছরটিই। জীবনে প্রেম এসেছে তাঁদের। মন্দে ভরা ২০২০ সালে অনেক তারকাই গাঁটছড়া বেঁধেছেন।

নেহা কক্কর এবং রোহনপ্রীত সিংহ:  এই সারিতে প্রথম যাঁদের নাম মাথায় আসে তাঁরা হলেন নেহা কক্কর এবং রোহনপ্রীত সিংহ। একটি মিউজিক সেটে তাঁদের আলাপ হওয়ার দু'মাসের মধ্যেই বিয়ে করে ফেলেন তাঁরা। ২৪ অক্টোবর দিল্লিতে ধুমধাম করে বিয়ের অনুষ্ঠান করেন তাঁরা।
Advertisement
প্রথম দেখাতেই নেহাকে ভাল লেগে গিয়েছিল রোহনপ্রীতের। নেহাও স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিলেন, এই সম্পর্ককে তিনি সিরিয়াসলিই নিচ্ছেন। বিয়ের জন্যই মানসিক ভাবে প্রস্তুত থাকছেন। বিয়ের কথায় প্রথমে রোহনপ্রীত অস্বস্তিতে পড়ে যান। দু'জনের মধ্যে কখাও বন্ধ হয়ে যায়। তার পরই রোহনপ্রীত বুঝতে পারেন, নেহাকে কতটা ভালবেসে ফেলেছেন তিনি। নেহাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে দেন রোহন।

কাজল আগরওয়াল এবং গৌতম কিচলু: ৩০ অক্টোবর মুম্বইয়ে একটি ছোট ঘরোয়া অনুষ্ঠানে উদ্যোগপতি গৌতম কিচলুর সঙ্গে পথ চলার অঙ্গীকার নেন কাজল আগরওয়াল। বিয়ের পর স্বামী গৌতমের সঙ্গে নির্জন মলদ্বীপে সময় কাটান কাজল। হনিমুনের দুর্দান্ত সব ছবি ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেছেন দু'জনে।
Advertisement
গৌতমের সঙ্গে কাজলের পরিচয় অনেক আগে। টানা তিন বছর তাঁরা ডেট করেছেন। তার পর ৭ বছর তাঁরা হয়ে উঠেছিলেন পরস্পরের সবচেয়ে ভাল বন্ধু।

রানা ডাগ্গুবতী এবং মিহিকা বাজাজ:  করোনা আবহের মধ্যে গত মে মাসে বাগদান সেরেছিলেন। আর অগস্টে সোজা ছাদনাতলায় হাজির হন ‘বাহুবলী’র বল্লালদেব অর্থাৎ রানা ডাগ্গুবতী। দীর্ঘদিনের প্রেমিকা মিহিকা বাজাজের সঙ্গে হায়দরাবাদের রামানাইডু স্টুডিয়োতেই বিয়েটা সেরে ফেলেন বড় পর্দার এই ‘খলনায়ক’।

রানার স্ত্রী মিহিকা পেশায় ইন্টিরিয়র ডিজাইনার। বলিপাড়াতেও তাঁর বেশ ভালই যোগাযোগ রয়েছে। অভিনেত্রী সোনম কপূরের অন্তরঙ্গ বন্ধু তিনি। সোনমের বিয়েতেও দেখা গিয়েছিল মিহিকাকে। যদিও মিহিকার বিয়েতে থাকতে পারেননি সোনম।

শ্বেতা আগরওয়াল এবং আদিত্য: সম্প্রতি ডিসেম্বরে জুহুর ইসকন মন্দিরে অভিনেত্রী শ্বেতা আগরওয়াল ও গায়ক আদিত্যর বিয়ে হয়। শ্বেতাকে বরমাল্য পরানোর সময়ে বন্ধুরা কোলে তুলতেই আদিত্যর শৌখিন প্যান্ট নাকি ফেটে গিয়েছিল! ভাগ্য ভাল, বন্ধুর কাছে বাড়তি একটি পাজামা ছিল। তাই দিয়ে সম্ভ্রম বাঁচান আদিত্য। মধুচন্দ্রিমায় উড়ে যান শ্রীনগরে।

গওহর খান এবং জায়েদ:  ২৫ ডিসেম্বর গওহর খান বিয়ে করেন সঙ্গীত পরিচালক ইসমাইল দরবারের ছেলে জায়েদকে। প্রথামাফিক নিকাহ-র পরে রাজকীয় পার্টিরও আয়োজন করেন তাঁরা। তাঁদের বিয়ের ডিজিটাল আমন্ত্রণপত্র ছিল আলোচনার কেন্দ্রে। সেখানে তাঁদের প্রেমপর্বকে বলা হয়েছে ‘লকডাউন লভস্টোরি’।

তাঁদের আলাপ হয়েছিল শপিং সেন্টারে। দু’জনেই কেনাকাটা করছিলেন। তার পর ক্রমে ঘনিষ্ঠ হয় আলাপ। সেখান থেকে প্রেম। গান গেয়ে এবং আংটি দিয়ে গওহরকে প্রপোজ করেন জায়েদ।

সানা খান এবং মুফতি অনস:  ২০ নভেম্বর বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন এক সময়ের হট অভিনেত্রী সানা খান এবং মুফতি অনস। তাঁদের বিয়ের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই, নবদম্পতির দিকে ধেয়ে আসে কুরুচিকর মন্তব্য,  মিম,  ট্রোল ইত্যাদি। যার মোদ্দা কথা ছিল, এই জুড়ি একেবারেই বেমানান। তবে এ সবকে তোয়াক্কা না করেই নিজেদের মতো করে ভালবাসায় দিন কাটাচ্ছেন তাঁরা।

বিয়ের পর কাশ্মীরে হনিমুন কাটান তাঁরা। সেখানে স্বামী মুফতির জন্মদিনও পালন করেন সানা। বিয়েতে পরিবার সানার উপর কোনও চাপ দিয়েছে কি না এ নিয়ে অনেক জল্পনাও হয়েছিল।

পুনম পাণ্ডে এবং স্যাম বম্বে:  সেপ্টেম্বরে অভিনেত্রী পুনম পাণ্ডে বিয়ে করেন স্যাম বম্বেকে। মাস ঘুরতে না ঘুরতেই তাঁদের দাম্পত্য কলহ এমন পর্যায়ে পৌঁছয় যে, স্বামীর বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানি এবং শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ দায়ের করে বসেন পুনম।  স্ত্রী-এর অভিযোগে গ্রেফতার অবধি হতে হয় স্যামকে। পরে অবশ্য দুজনের মিলও হয়ে যায়।

দু’বছর লিভ-ইন সম্পর্কে থাকার পর বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন স্যাম এবং পুনম। বিয়ের পর হনিমুনের জন্য গোয়ায় উড়ে যান তাঁরা। সেখানেই ঘটে যেতেই এই বিপত্তি। আপাতত সুখেই রয়েছেন তাঁরা।

আরমান জৈন এবং অনীশা মলহোত্র:  ২০২০-র শুরুর দিকেই আরও এক সেলেব বিয়ে করেন। তিনি হলেন রাজ কপূরের নাতি আরমান জৈন। বিয়ে করেছেন বান্ধবী অনীশা মলহোত্রকে। পেশায় অনীশা একজন মডেল এবং ফ্যাশন ব্লগার।