Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

বিনোদন

খান-বচ্চন-কপূররা চুপ, তবুও রিয়ার সমর্থন বাড়ছে বলিউডে

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ১১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৮:৫৭
মুম্বইয়ের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছিল বলিউড তারকা সুশান্ত সিংহ রাজপুতের দেহ। তার পর থেকে যত দিন গড়িয়েছে সেই ঘটনাকে ঘিরে ক্রমশ ঘনিয়ে উঠেছে বিতর্ক। কখনও টাকা নিয়ে নেওয়া, কখনও বা মাদক চক্রে যোগ সবমিলিয়ে সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যু তদন্তে বার বার আঙুল তোলা হয়েছে প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর দিকে। বাঙালি মেয়ে বলেও হেনস্থা করা হয়েছে রিয়াকে, নেটাগরিকদের একাংশ সরবও হয়েছেন এই ইস্যুতে।

রিয়া চক্রবর্তীর দিকে অভিযোগের আঙুল তোলা নিয়েও তৈরি হয়েছে বিতর্ক। দ্বিধাবিভক্ত হয়েছে বলিউড। ১৮ জুন সুশান্তের প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীকে প্রথম তলব করে মুম্বইয়ের বান্দ্রা পুলিশ। তাঁর বয়ান রেকর্ডও করা হয়। মঙ্গলবার গ্রেফতার করা হয় তাঁকে।
Advertisement
রিয়া ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে সুশান্ত সিংহ রাজ পরিবারের তরফে অভিযোগের আঙুল তোলা হয়েছিল প্রথম থেকেই। রিয়ার বিরুদ্ধে সরব হন কেউ। খান-বচ্চনরা নীরব থাকলেও বলিউডের বেশিরভাগই এগিয়ে এসেছেন রিয়ার সমর্থনে। তাঁদের বক্তব্য, আদালতের উপর বিচার ভার ছেড়ে দেওয়া উচিত।

রিয়াকে ঘিরে যে ভাবে বিদ্বেষমূলক মন্তব্য ছড়িয়েছে, যে ভাবে প্রমাণ ছাড়াই রিয়াকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে বিভিন্ন প্রচারমাধ্যম এবং সমাজমাধ্যমে। তা অত্যন্ত কুৎসিত বলেই মন্তব্য করেছেন অনুরাগ কাশ্যপ।
Advertisement
রিয়া চক্রবর্তী গ্রেফতার হওয়ার পর থেকেই তাঁর সমর্থনে এগিয়ে এসেছেন অনুরাগ। করেছেন একাধিক টুইট। তদন্তের ফাঁকফোকর দেখিয়ে তুলেছেন নানা প্রশ্ন। রিয়ার সমর্থনে এগিয়ে আসা উচিত বলিউডের, এমনই পোস্ট করেন অনুরাগ। অভিনেত্রী স্বরা ভাস্করও এগিয়ে এসেছেন রিয়ার সমর্থনে।

মাদক কাণ্ডে রিয়ার গ্রেফতারির পরই সরব হন তাপসী পান্নু। টুইট পোস্টে বলেন, রিয়া কিন্তু মাদক সেবন করত না। সুশান্ত বেঁচে থাকলে কি ওঁর বিরুদ্ধে মামলা হত? কটাক্ষ করে তাপসীর টুইট, নির্ঘাত জোর করেই সুশান্তকে মাদক দিয়েছিল রিয়া!

''আত্মহত্যায় প্ররোচনা নয়, আর্থিক তছরুপ নয়, খুনি নয়? এখন বুঝতে পারছি কেন মারিজুয়ানা এ দেশে বৈধ নয়!'' রিয়ার গ্রেফতারির পর এমনই পোস্ট করেন 'আলিগড়' পরিচালক হনসল মেটাও।

অভিনেত্রী কৃতিকা কামরা লেখেন, ''রক্তের নেশা আর ঘৃণা, প্রচারমাধ্যম সাফল্যের সঙ্গে এমন একটা জায়গায় নিয়ে এসেছে সবাইকে। আমরা কিছুই দেখি না, শুনি না, অনুভব করি না।''

সলমন খানের 'দাবাং ৩' ছবির প্রযোজক নিখিল দ্বিবেদী রিয়ার সঙ্গে কাজে আগ্রহ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, রিয়া তাঁর পরিচিত নন, কিন্তু যে ভাবে রিয়ার সঙ্গে আচরণ করা হচ্ছে, তা বেআইনি। সভ্য দেশের আচরণ এমন হওয়া ঠিক না। প্রযোজক প্রীতীশ নন্দীও সুশান্ত ও রিয়া দুজনের জন্যই সঠিক বিচার চেয়েছেন।

পিতৃতন্ত্রের শিকার হতে হচ্ছে রিয়াকে। তাই সমাজ মাধ্যম ও কয়েকটি প্রচার জুড়ে এত ঘৃণা উগরে দেওয়া হচ্ছে। এমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন রিয়া, তাঁর একটি টি শার্টে। তাতে লেখা ছিল, 'রোজেস আর রেড, ভায়োলেটস আর ব্লু। লেট স্ম্যাশ দ্য পেট্রিয়ার্কি-মি অ্যান্ড ইউ।'

এর পর সোনম কপূর একটি পোস্ট করেন, তাতে লেখা ছিল, ''উইচ-হান্ট প্রত্যেকেরই পছন্দ, যতক্ষণ পর্যন্ত সেটা অন্যের ক্ষেত্রে হচ্ছে।''

রিয়ার এই টি শার্টের ক্যাপশন টুইট করেন বিদ্যা বালন, কুব্রা শেঠ। কুব্রা আগেও রিয়ার প্রতি বিদ্বেষ, সামাজিক বুলিংকে সমর্থন করেননি।

রিয়ার প্রতি ছড়িয়ে পড়া ঘৃণা, বিচারের আগেই রিয়াকে দোষী বানিয়ে দেওয়ার এই ‘চল’-কে ফারহান আখতার, জোয়া আখতার, শাবানা আজমিও সমর্থন জানাননি। তাঁরাও পোস্ট করেন টি শার্টের এই ক্যাপশনটি।

১৫ জুন বলিউডের পরিচালক এবং অভিনেতাদের একাংশের বিরুদ্ধে স্বজনপোষণের অভিযোগ তোলেন অভিনেত্রীর কঙ্গনা রানাউত। সুশান্তের আত্মহত্যার তত্ত্বও খারিজ করে দেন কঙ্গনা।

সুশান্তের প্রাক্তন প্রেমিকা অঙ্কিতা লোখন্ডে রিয়ার বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন প্রথম থেকেই। ‘‘সুশান্তের মৃত্যু খুন না আত্মহত্যা জানি না। আমি শুধু তাই, নিরপেক্ষ তদন্তে সত্যিটা প্রমাণ হোক। মুম্বই পুলিশ এবং প্রশাসনের উপরে আমার আস্থা রয়েছে।আমি শুধু সুশান্তের মানসিক অসুস্থতার প্রসঙ্গেই (রিয়া) বিরুদ্ধাচারণ করেছিলাম।’’ কেন সুশান্তকে ড্রাগ নেওয়া থেকে রিয়া আটকাননি বা অভিনেতার পরিবারকে সে কথা জানাননি, সেই প্রশ্ন তুলেছেন অঙ্কিতা।

এদিকে মডেল-অভিনেত্রী শিবানী ডান্ডেকর, যিনি রিয়ার বিশেষ বন্ধু, তিনি অঙ্কিতার দিকে সরাসরি অভিযোগের আঙুল তুলেছেন।শিবানীর দাবি, অঙ্কিতার কারণেই রিয়ার প্রতি বিদ্বেষ ছড়িয়েছে।

অভিনেতা শেখর সুমন রিয়ার গ্রেফতারির পর পোস্ট করেছেন, আশা রয়েছে, আস্তে আস্তে গোটা বিষয়টাই স্পষ্ট হবে। কিন্তু শাহরুখ-সলমন-আমির কিংবা বচ্চন পরিবার প্রায় নীরবই রয়েছেন এই প্রসঙ্গে। কপূর পরিবারের তরফেও সে অর্থে কেউ কিছু বলেননি।