সুইস আল্পসের গা বেয়ে নেমে আসছেন শ্রীদেবী। বরফ-ঠান্ডা হলেও পরনে ফিনফিনে শিফন শাড়ি। এর পর বরফের গায়েই শুরু হয়েছে নায়কের সঙ্গে শ্রীদেবীর রোম্যান্স।

সুইৎজ়ারল্যান্ডে যশ চোপড়ার রোম্যান্টিক ফিল্মের দৃশ্যে বার বার এসেছেন শ্রীদেবী। শুটিং করতে বলিউডও ছুটে গিয়েছে সুইস আল্পসে। তাতেই নাকি বাড়বাড়ন্ত হয়েছে সে দেশের পর্যটন শিল্পে। সে কথা মাথায় রেখেই এ বার শ্রীদেবী মূর্তি বসানোর পরিকল্পনা নিয়েছে সুইৎজ়ারল্যান্ডের পর্যটন দফতর।

সংবাদ সংস্থা সূত্রের খবর, এখনও পর্যন্ত গোটা বিষয়টাই পরিকল্পনার স্তরে রয়েছে। তবে শ্রীদেবীই প্রথম নন, এর আগে বলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির প্রতিনিধি হিসাবে যশ চোপড়ার মূর্তি বসেছে সুইৎজ়ারল্যান্ডের ইন্টারলাকেনে। তাঁর নামে একটি ট্রেনও রয়েছে সে দেশে।

আরও পডুন
‘সোয়েটার’-এর ক্যাপ্টেনের জন্মদিন, দেখুন সেলিব্রেশনের ভিডিও

পর্যটন দফতরের এক শীর্ষ কর্তা বলেন, “ভারতের সঙ্গে সুইৎজ়ারল্যান্ডের যোগসূত্রকে তুলে ধরতে ইন্টারলাকেনে যশ চোপড়ার মূর্তি বসিয়েছে সুইস সরকার। আর এখন শ্রীদেবীর মূর্তি বসানোর কথা চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে। এ দেশের পর্যটন শিল্পে তাঁর অবদানের কথা মাথায় রেখে শ্রীদেবীকে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করতে এই প্রস্তাব করা হয়েছে।”  

আরও পডুন
এই ব্লকবাস্টার ফিল্মগুলি করতে রাজিই হননি দীপিকা পাড়ুকোন!

যশ চোপড়াই শুধু নন, আল্পসের গায়ে এর আগেও শুটিং করেছে বলিউড। রাজ কপূরের ১৯৬৪-এর ফিল্ম ‘সঙ্গম’ হল প্রথম ভারতীয় ফিল্ম, যার শুটিং হয়েছিল সুইৎজ়ারল্যান্ডে। এর পর একে একে সুইস আল্পসকে আপন করেছে বলিউডের তাবড় পরিচালকেরা। সে সব ফিল্মি দৃশ্যে আল্পসকে দেখে সেখানে ঢল নেমেছে ভারতীয় পর্যটকদের। সুইৎজ়ারল্যান্ডের পর্যটন দফতরের দাবি, ১৯৯২-তে ২৮,৮৩৪ জন ভারতীয় সে দেশে গিয়েছিল। কিন্তু ২০১৭-তে তা বেড়ে দাঁড়ায় ৩২৬, ৪৫৪।