Advertisement
০৪ মার্চ ২০২৪
Sanju Movie

কেমন করে রণবীর হয়ে উঠলেন সঞ্জয় দত্ত? দেখুন ভিডিয়ো

মনে, প্রাণে, শরীরে সম্পূর্ণ একটা আলাদা মানুষ হয়ে ওঠা জীবনের অন্যতম অভিজ্ঞতা বলে জানিয়েছেন রাজকুমার হিরানির ‘সঞ্জু’। সঞ্জয়ের লুক পুরোপুরি না এলে ছবিটাই যে হত না।

নিজের ভিতরের রণবীরকে সরিয়ে রেখে আপাদমস্তক ‘সঞ্জু’ হয়ে ওঠার জার্নির কথা জানিয়েছেন রণবীর কপূর।

নিজের ভিতরের রণবীরকে সরিয়ে রেখে আপাদমস্তক ‘সঞ্জু’ হয়ে ওঠার জার্নির কথা জানিয়েছেন রণবীর কপূর।

সংবাদ সংস্থা
শেষ আপডেট: ০৯ জুলাই ২০১৮ ১৩:২৫
Share: Save:

একটার পর একটা লুক টেস্ট বাতিল। ছ’ঘণ্টা প্রস্থেটিক মেকআপ টিপের সামনে পোজ। ফাইনাল টেক ফ্লপ। রাত তিনটেয় আড়মোড়া ভেঙে উঠেই প্রোটিন শেকে চুমুক। তারপর সারাদিন ঘাম ঝরিয়ে জিমের ইনস্ট্রাকটরের আদেশ পালন। না পারলেই চোখ রাঙানি। নিজের ভিতরের রণবীরকে সরিয়ে রেখে আপাদমস্তক ‘সঞ্জু’ হয়ে ওঠার জার্নির কথা জানালেন রণবীর কপূর।

কেমন ছিল সে অভিজ্ঞতা? মনে, প্রাণে, শরীরে সম্পূর্ণ একটা আলাদা মানুষ হয়ে ওঠা জীবনের অন্যতম অভিজ্ঞতা বলে জানিয়েছেন রাজকুমার হিরানির ‘সঞ্জু’। সঞ্জয়ের লুক পুরোপুরি না এলে ছবিটাই যে হত না। কেমন করে ছবির জন্য ভোলবদল হয়েছে রণবীরের তার গোটাটাই ভিডিয়ো আকারে সামনে এসেছে। রাজকুমার হিরানি বলেছেন, ‘‘প্রথম চ্যালেঞ্জ ছিল সঞ্জয় দত্তের চরিত্রে কে অভিনয় করবে? এমন একজন যে চেহারায়, কথাবার্তা ও আদবকায়দায় পুরোপরি সঞ্জয় হবে। তার মতো করেই ভাববে।’’ রণবীর যে সেই জায়গায় একশোয় একশো পেয়েছেন সে কথা অবশ্য বলতে ভোলেননি পরিচালক।

তবে, রহস্যের মোড়ক খুলেছেন খোদ রণবীর। ২০১৬ সালে রাজকুমার হিরানির মেসেজ মোবাইল স্ক্রিনে ফুটে ওঠা থেকেই চমকের শুরু। প্রথমে নাকি চরিত্রের জন্য রাজি ছিলেন না রণবীর। পরে চ্যালেঞ্জ অ্যাকসেপ্ট করেন। শুরু হয় যুদ্ধ।

পাকাপাকি ভাবে ‘সঞ্জু’ অবতারে আসার আগে একটার পর একটা লুক টেস্ট বাতিল হয়।
প্রস্থেটিক মেকআপের জন্য দিনে ছ’ঘণ্টা পোজ দিতে হত রণবীকে।

প্রথমেই শুরু হয় সঞ্জয় দত্তের মতো চেহারা ফুটিয়ে তোলার জন্য লুক টেস্ট। রণবীর জানিয়েছেন, প্রতি দিন অন্তত ছ’ঘণ্টা প্রস্থেটিক মেকআপ টিমের সঙ্গে আলোচনায় বসতে হত। একটার পর একটা লুক টেস্ট বাতিল হয়েছে। ফাইনাল লুক প্রকাশ্যে আসার আগে কমপক্ষে ছ’বার নিজের লুক বদল করেছেন রণবীর। অভিনেতা বলেছেন, ‘‘ছ’ঘণ্টা চেয়ারে বসে পোজ দিতে হত। মেকআপ নিয়ে আলোচনা চলত। শেষে বলা হত টেক ক্যানসেল। ফের পরের দিন একই ভাবে বসতে হত।’’

দেখুন ভিডিয়ো:

এ তো গেল লুক টেস্ট। এর পর শারীরিক কসরত। রণবীরের কথায়, প্রতিদিন রাত তিনটেয় উঠে এক গ্লাস প্রোটিন শেক ছিল তাঁর বরাদ্দ। তার পর ৮-৯টা মিল। সেই সঙ্গে জিম সেশন। ‘‘জিম করা আমার একেবারেই অপছন্দের। তবে এই বায়োপিকে চেহারার খুবই গুরুত্ব রয়েছে। সঞ্জয়ের মতো পেশী বানাতে আমাকে রীতিমতো চ্যালেঞ্জ নিতে হয়েছিল,’’ বলেছেন ‘সঞ্জু’র রণবীর। মাস খানেকের চেষ্টায় চেহারার পরিবর্তন দেখে নিজেই নাকি খুব অবাক হয়ে গিয়েছিলেন। অভিনেতা বলেছেন, ‘‘আমার শরীরে পেশীর ঢেউ খেলছিল। জীবনে এমন চেহারার কথা ভাবিনি। সেটে সবাই আমাকে দেখে বলেছিল, এ বার আমরা সফল হতে চলেছি।’’

আরও পড়ুন:

দীপিকা পাড়ুকোনের চেয়ে কোনও অংশে কম যান না তাঁর এই স্টাইলিস্ট

অভিনয়ের পাশাপাশি এই দক্ষিণী তারকারা কী করেন জানেন?

সফল হয়েওছেন তিনি। মুক্তির প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই ২০০ কোটির ক্লাবে পা দিয়েছে ‘সঞ্জু’। কোণঠাসা অবস্থা থেকে বলিউডে ফের নিজের সিংহাসন ফিরে পেয়েছেন রণবীর।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE