Advertisement
২৭ নভেম্বর ২০২২

পুরুষ ও নারীর হাসিই বলে দেয় তিনি ঠিক কেমন

আন্তরিক ভাবে হাসি, দাঁত সামান্য বের হয় ও সামান্য মিষ্টি হাস্য ধ্বনি হয় যাদের, তা হল রুচিশীল মানুষের চিহ্ন। হাসির সময় গদগদ ভাব থাকে, কিন্তু তা বাহ্যিক, অন্তরের হাসির নয়, তা হলে তা প্রতারকের হাসি।

শ্রীমতী অপালা
শেষ আপডেট: ২৪ অগস্ট ২০১৯ ০০:০৫
Share: Save:

শুধু হাসি নয়, আমাদের চলাফেরা, কথা বলা, খাওয়ার ধরন সব কিছু দিয়েই আমাদের লক্ষণ বলা যায়। এটি পুরুষ নারী সকলের জন্য একই ভাবে প্রযোজ্য।
পুরুষের হাসির লক্ষণ
১) পুরুষের মুখে হাসি না ফুটলে, সর্বদা মুখ গম্ভীর করে থাকলে, অনেক ক্সময় তিনি নিষ্ঠুর ও কঠোর হন।
২) বারে বারে বিনা কারণে হাসলে, তা হালকা স্বভাব এবং গাম্ভীর্যের অভাব বোঝায়।
৩) যাঁরা উচ্চস্বরে হাসেন, বেশির ভাগ ক্ষেত্রে তাঁদের স্বভাব হয় সরল, উদার এবং তাঁদের মনে প্যাঁচ কম থাকে।

Advertisement

আরও পড়ুন:চোখ দেখে কারও সম্পর্কে এত কিছু বলা যায়, জানতেন?

৪) হাসির সময়ে মুখ সামান্য বিকৃত হয় কিন্তু দাঁত বের হয় না বা কোনও শব্দ বের হয় না, বেশির ভাগ ক্ষেত্রে তাঁদের মধ্যে ধূর্তামি ও প্যাঁচ থাকে।
৫) হাসির সময় গদগদ ভাব থাকে, কিন্তু তা বাহ্যিক, অন্তরের হাসির নয়, তা হলে তা প্রতারকের হাসি।
৬) আন্তরিক ভাবে হাসি, দাঁত সামান্য বের হয় ও সামান্য মিষ্টি হাস্য ধ্বনি হয় যাঁদের, সাধারণত তাঁরা রুচিশীল হন।

নারীর হাসির লক্ষণ
১) নারীর হাসি মিষ্টি হলে তা সর্বদা শুভ লক্ষণ।
২) নারী উচ্চস্বরে হাসলে জ্যোতিষমতে তা অশুভ লক্ষণ বোঝায়।
৩) সর্বদা হাস্যমুখী নারী জীবনে খুব সুখী হয়।
৪) খুব গম্ভীর নারী, যাঁর মুখে সহসা হাসি দেখা যায় না, বেশির ভাগ সময়ে তিনি জেদী ও একগুঁয়ে হন।
৬) নারীর মুখে হাসি হাসি ভাব কিন্তু তাঁর মনের ভেতর কুটিলতা থাকলে, সাংসারিক জীবনে অশান্তির সৃষ্টি হয়ে থাকে।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.