Advertisement
১৮ জুলাই ২০২৪

ক্রিকেট-সম্পর্ক জোরদার করতে চায় অস্ট্রেলিয়া

মাঠের মধ্যে যতই ‘স্লেজিং’ থাকুক, মাঠের বাইরে ক্রিকেটকে কূটনীতির অন্যতম স্তম্ভ করতে চলেছে ভারত এবং অস্ট্রেলিয়া। আগামী কাল দু’দিনের ভারত সফরে আসছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী টনি অ্যাবট। বিদেশ মন্ত্রক জানিয়েছে, ভারতের সঙ্গে অসামরিক পরমাণু চুক্তি সই হবে তাঁর সফরে। আলোচনা হবে দু’দেশের মধ্যে ক্রিকেট-সম্পর্ককে আরও জোরদার করা নিয়েও।

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৪ ০৩:০৪
Share: Save:

মাঠের মধ্যে যতই ‘স্লেজিং’ থাকুক, মাঠের বাইরে ক্রিকেটকে কূটনীতির অন্যতম স্তম্ভ করতে চলেছে ভারত এবং অস্ট্রেলিয়া। আগামী কাল দু’দিনের ভারত সফরে আসছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী টনি অ্যাবট। বিদেশ মন্ত্রক জানিয়েছে, ভারতের সঙ্গে অসামরিক পরমাণু চুক্তি সই হবে তাঁর সফরে। আলোচনা হবে দু’দেশের মধ্যে ক্রিকেট-সম্পর্ককে আরও জোরদার করা নিয়েও। আগামী বছরের গোড়ায় কলকাতা-সহ দেশের বিভিন্ন শহরে ডোনাল্ড ব্র্যাডম্যানের ব্যবহৃত ক্রিকেট সরঞ্জামগুলি প্রদর্শনীর বিষয়টিও চূড়ান্ত করা হবে।

আজ বিদেশ মন্ত্রকে অস্ট্রেলিয়ার ভারপ্রাপ্ত যুগ্মসচিব সঞ্জয় ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, “ক্রিকেট দু’দেশের সম্পর্কের একটি প্রধান দিক। অ্যাবট তাঁর সফরে দিল্লির পাশাপাশি মুম্বইয়েও যাবেন। সেখানে সচিন তেন্ডুলকর, ব্রেট লি, অ্যাডাম গিলক্রিস্টের সঙ্গে দেখা করবেন তিনি।” সঞ্জয়বাবু জানান, আগামী বছর নিউজিল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়া যৌথ ভাবে বিশ্বকাপের আয়োজন করছে। তখনই ব্র্যাডম্যানের সংগ্রহশালা থেকে বিভিন্ন সামগ্রী ভারতের বিভিন্ন শহরে এনে প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা হবে। কলকাতায় ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে ওই প্রদর্শনী হবে। তাতে থাকবে ব্র্যাডম্যানের ব্যবহৃত ব্যাট, গ্লাভস, প্যাড, তাঁর চিঠি, ডায়েরি ইত্যাদি। ভারত সরকারের সঙ্গে এ ব্যাপারে সহযোগিতা করবে সে দেশের ডন ব্র্যাডম্যান ফাউন্ডেশন।

অ্যাবটের আসন্ন সফরে পরমাণু শক্তি ক্ষেত্রে একটি বড় চুক্তি হতে চলেছে বলে জানিয়েছেন সঞ্জয়বাবু। শেষ মুহূর্তে কোনও পরিবর্তন না হলে ভারতকে ইউরেনিয়াম রফতানির বিষয়ে চুক্তিবদ্ধ হবে অস্ট্রেলিয়া। ভারতের শক্তির চাহিদার প্রশ্নে নিঃসন্দেহে এই ঘটনা একটি বড় মাইলফলক বলে মনে করছে দিল্লি। গত দু’বছর ধরেই বিষয়টি নিয়ে কূটনৈতিক প্রক্রিয়া চালিয়েছে দু’দেশ। পাঁচটি বৈঠকও হয়েছে দু’দেশের শীর্ষ কর্তাদের মধ্যে। ক্রিকেট ও পরমাণু সমঝোতার পাশাপাশি শিক্ষা, জল সম্পদ, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রেও পারস্পরিক সমঝোতা হওয়ার কথা দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE