×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৩ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

২০ বছরে রেকর্ড পরিমাণ ধান উৎপাদন ভূপেশ বাঘেলের ছত্তীসগঢ়ে

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২২ জানুয়ারি ২০২১ ১৯:১৩
কৃষকদের সঙ্গে ছত্তীসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল।

কৃষকদের সঙ্গে ছত্তীসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল।
—নিজস্ব চিত্র।

বিগত ২০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ধান তোলার নজির গড়ল ছত্তীসগঢ়। রাজ্যে তো বটেই, দেশের কৃষি-মানচিত্রেও ক্রমশ দৃষ্টান্ত হয়ে উঠছে ভূপেশ বাঘেলের রাজ্য। চলতি খরিফ মরসুমের এখনও ১০ দিন বাকি। তবে তার আগেই রেকর্ড পরিমাণ ধান ফলিয়েছেন ছত্তীসগঢ়ের কৃষকেরা। পাল্লা দিয়ে বে়ড়েছে রাজ্যের কৃষিজীবীদের সংখ্যাও।

কৃষি দফতরের দাবি, চলতি মরসুমের ২১ জানুয়ারি পর্যন্ত ৮৪.৪৪ লক্ষ মেট্রিক টন ধান তোলা হয়েছে ছত্তীসগঢ়ে। যা গত বছরের থেকে ৫০ হাজার মেট্রিক টন বেশি। তুলনামূলক ভাবে, গত বছর গোটা মরসুমে ৮৩.৯৪ লক্ষ মেট্রিক টন ধান তুলেছিলেন ছত্তীসগঢ়ের কৃষকেরা।

গত দু’বছর ধরেই ধান তোলার পরিমাণ-সহ কৃষকদের সংখ্যাও উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি পেয়েছে ছত্তীসগঢ়ে। রাজ্য সরকারের কৃষক-দরদী নীতির ফলেই যে এই সাফল্য, তা মনে করছেন অনেকে। প্রশাসন সূত্রে খবর, ছত্তীসগঢ় সরকারের ‘রাজীব গাঁধী ন্যায় যোজনা’-র আওতায় চলতি আর্থিক বর্ষে রাজ্যের ১৯ লক্ষ কৃষকদের ৫,৭৫০ কোটি টাকার ভাতা দেওয়া হয়েছে। যার ফলে ধান উৎপাদনেও জোয়ার এসেছে। তা ছাড়া, এখনও পর্যন্ত ১৯ লক্ষ ৫৪ হাজার ৩৩২ জন কৃষক সরকার নির্ধারিত সহায়ক মূল্যে নিজেদের ফসল বিক্রি করতে পেরেছেন।

Advertisement
ধান উৎপাদনের পাশাপাশি ছত্তীসগঢ়ে কৃষকদের সংখ্যাতেও উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি হয়েছে।

ধান উৎপাদনের পাশাপাশি ছত্তীসগঢ়ে কৃষকদের সংখ্যাতেও উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি হয়েছে।
—নিজস্ব চিত্র।


সরকারি পরিসংখ্যান ঘাঁটলে দেখা যাবে, প্রতি বছরই লক্ষ্যণীয় ভাবে ধান উৎপাদনের পরিমাণ বাড়ছে ছত্তীসগঢ়ে। সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০১৭-’১৮ অর্থবর্ষে ছত্তীসগঢ়ে ৫৬.৮৮ লক্ষ মেট্রিক টন ধান উৎপাদন হয়েছে। ২০১৮-’১৯ অর্থবর্ষে ৮০.৮৩ লক্ষ মেট্রিক টন ঘরে তুলেছেন ওই রাজ্যের কৃষকেরা। অন্য দিকে, ২০১৯-’২০ অর্থবর্ষে ৮৩.৯৪ লক্ষ মেট্রিক টন ধান উৎপাদন হয়েছে।

ধান উৎপাদনের পাশাপাশি রাজ্যে কৃষকদের সংখ্যাতেও উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি হয়েছে। ২০১৭-’১৮ অর্থবর্ষে ছত্তীসগঢ়ে নথিভুক্ত কৃষকের সংখ্যা ছিল ১৫.৭৭ লক্ষ। পরের অর্থবর্ষে তা বেড়ে দাঁড়ায় ১৬.৯৬ লক্ষ। ২০১৯-’২০ অর্থবর্ষে এই সংখ্যা ১৯.৫৫ লক্ষ ছুঁয়েছে। চলতি অর্থবর্ষে সহায়ক মূল্যে ধান বিক্রয়কারী কৃষকের সংখ্যা পৌঁছেছে ২১.৫২ লক্ষে।

২০২০-’২১ অর্থবর্ষে চলতি খরিফ মরসুমের ২১ জানুয়ারি পর্যন্ত রাজ্যের বিভিন্ন জেলার মধ্যে শুধুমাত্র বস্তার জেলাতেই ১ লক্ষ ২০ হাজার ৪৭১ মেট্রিক টন ধান উৎপন্ন হয়েছে। বিজাপুর জেলায় উৎপাদিত ধানের পরিমাণ ৫৫ হাজার ৪০১ মেট্রিক টন। ১৩ হাজার ৪০১ মেট্রিক টন ধান ফলিয়েছেন দান্তেওয়াড়ায় কৃষকেরা। কঙ্কের জেলায় ২ লক্ষ ৬৫ হাজার ৩৫০ মেট্রিক টন ধান উৎপাদিত হয়েছে। এই জেলাগুলি ছাড়াও রাজ্যের অন্যান্য জেলাতেও আগের থেকে ধানের উৎপাদন বেড়েছে বহু গুণ।

Advertisement