Advertisement
১৭ জুন ২০২৪
National news

চাই ১০০০ ঘণ্টা ওড়ার অভিজ্ঞতা, তবেই ওড়ানো যাবে ৭৩৭ ম্যাক্স, নির্দেশিকা ডিজিসিএ-র

ডিজিসিএ-র পক্ষ থেকে সমস্ত ভারতীয় বিমান সংস্থাকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে এই নির্দেশ।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ১২ মার্চ ২০১৯ ০৯:৫১
Share: Save:

ভারতীয় এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমানগুলোর ক্ষেত্রে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিল ডিরেক্টর জেনারেল অব সিভিল অ্যাভিয়েশন (ডিজিসিএ)। অত্যন্ত দক্ষ এবং অভিজ্ঞ পাইলট এবং কো-পাইলটই একমাত্র এই বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান চালাতে পারবেন, ডিজিসিএ-র পক্ষ থেকে সমস্ত ভারতীয় বিমান সংস্থাকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে এই নির্দেশ।

রবিবারের ইথিওপিয়ায় ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনা হয়।পর দিন অর্থাৎ সোমবারই জরুরি বৈঠকে বসেন ডিজিসিএ-র কর্তারা। কারণ ভারতীয় দুই বিমান সংস্থা জেট এয়ারওয়েজ এবং স্পাইসজেটও বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান চালায়। যাত্রীদের নিরাপত্তার স্বার্থে বৈঠকের পরই ডিজিসিএ-র ওই সিদ্ধান্ত।

অত্যন্ত দক্ষ এবং অভিজ্ঞ পাইলট বলতে কী বোঝায়?

ডিজিসিএ-র পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, যদি স্পাইসজেট এবং জেট এয়ারওয়েজকে বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান চালাতে হয়, তাহলে ন্যূনতম ১০০০ ঘণ্টা বিমার ওড়ানোর অভিজ্ঞতা সম্পন্ন কোনও পাইলটকেই চালানোর দায়িত্ব দিতে হবে। সঙ্গে যিনি কো-পাইলট থাকবেন, তাঁর ন্যূনতম ৫০০ ঘণ্টা বিমান ওড়ানোর অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। পাশাপাশি ৭৩৭ ম্যাক্স বিমানের রক্ষণাবেক্ষণের জন্য যা যা প্রয়োজনীয় গাইডলাইন রয়েছে, সেগুলো সবই পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে মেনে চলতে বলা হয়েছে বিমান সংস্থাগুলোকে। কোনওরকম গোলযোগ ধরা পড়লে সেটাকে অপ্রয়োজনীয় না ভেবে তৎক্ষণাৎ যেন উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: আজহার ‘জি’-তে হইচই, পুরনো অস্ত্র ফেরাতে গিয়ে বিতর্কে রাহুল

‘‘ডিজিসিএ বিষয়গুলোর উপর নজর রাখবে। দুর্ঘটনার তদন্তকারী সংস্থা, ফেডারেল অ্যাভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন এবং বোয়িং-এর থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে বিষয়টিতে আরও জোরালো কোনও পদক্ষেপও করা হতে পারে’’, ওই নির্দেশিকাতে জানিয়েছে ডিজিসিএ। সোমবার রাত ১২টা থেকে যা কার্যকর হয়েছে।

ভারতে বর্তমানে জেট এয়ারওয়েজ এবং স্পাইসজেটই বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান চালায়। জেট এয়ারওয়েজ বোয়িং-এর থেকে ২২৫টি ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান নেওয়ার চুক্তি করেছে। তার মধ্যে অনেকগুলো জেট এয়ারএয়েজের হাতে এসে পৌঁছে গিয়েছে। আপাতত পাঁচটি ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান চালায় জেট। পাঁচটির কোনওটাই আপাতত চালাবে না বলে সোমবারই বিবৃতিতে জানিয়েছে জেট। স্পাইসজেটের সঙ্গে বোয়িং-এর ২০৫টি বিমানের চুক্তি হয়েছে। যার মধ্যে ১৫৫টি বিমান ৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের। বর্তমানে স্পাইসজেটের ১৩টি ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান চলাচল করে। সেই বিমানগুলোর ক্ষেত্রে তারা কোনও পদক্ষেপ করবে কি না, স্পাইসজেট এখনও এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করেনি।

আরও পড়ুন: সন্তানদের নিয়ে গাড়িতে অগ্নিদগ্ধ মা

সাম্প্রতিক খবর নিয়ে খেলুন কুইজ

বোয়িং-এর ইতিহাসে ৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের বিমানই সবচেয়ে বেশি বিক্রির রেকর্ড রয়েছে। ৩৫০টিরও বেশি ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ইতিমধ্যে বিক্রি হয়ে গিয়েছে। ২০১৭ সাল থেকে পাঁচ হাজারের বেশি বিমানের বরাতও পেয়েছে বোয়িং। এর আগে বোয়িং এক বিবৃতিতে জানিয়েছিল, ‘অন্য বিমানের মতোই ৭৩৭ ম্যাক্সও নিরাপদ উড়ান।’ কিন্তু গত রবিবার ইথিয়োপিয়ায় ১৫৭ যাত্রী নিয়ে ৭৩৭ ম্যাক্স বিমানের ভেঙে পড়া এবং তারও কয়েক মাস আগে ইন্দোনেশিয়ায় একই ভাবে টেক অফের কয়েক মিনিটের মধ্যেই অন্য একটি ৭৩৭ ম্যাক্স ভেঙে পড়ার ঘটনায় যাত্রী সুরক্ষা নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে ডিজিসিএ। ভারতের পাশাপাশি চিনও বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন। চিনের সিসিসিএ সমস্ত বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স বিমান বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে তাদের বিমান সংস্থাগুলোকে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE