Advertisement
২৫ মে ২০২৪
Summer 2024

শনির ডিগ্রিতে দেশের মধ্যে দ্বিতীয় বাঁকুড়া! ৪৫ পার করে এক নম্বরে ওড়িশার বারিপদা, লড়াইয়ে পানাগড়ও

শনিবার ঝাড়খণ্ডের ডালটনগঞ্জে তাপমাত্রা ছিল ৪৩.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ৩.৭ ডিগ্রি বেশি। ছত্তীসগঢ়ের রাজনন্দাগাঁওতে ছিল ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ৭.৬ ডিগ্রি বেশি।

— প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি।

আনন্দবাজার অনলাইন সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২১ এপ্রিল ২০২৪ ০০:৩৮
Share: Save:

শনিবারের বারবেলায় তাপমাত্রার নিরিখে বাংলাকে হারিয়ে দিল ওড়িশা। মৌসম ভবনের তথ্য অনুযায়ী, প্রতিবেশী রাজ্যের বারিপদা দেশের মধ্যে তাপমাত্রার বিচারে শনিবার এক নম্বর স্থান অর্জন করেছে। দ্বিতীয় স্থানে বাংলার বাঁকুড়া। দুয়ের মধ্যে তাপমাত্রার ফারাক মাত্র ০.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মৌসম ভবনের হিসাব বলছে, শনিবার বারিপদার তাপমাত্রা ছিল ৪৫.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে ৭.১ ডিগ্রি বেশি। অন্য দিকে, বাঁকুড়ার তাপমাত্রা ছিল ৪৪.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে ৬.৬ ডিগ্রি বেশি। তবে আলিপুর আবহাওয়া দফতর যে হিসাব দিয়েছে, তাতে বলা হয়েছে শনিবার রাজ্যের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল পানাগড়ে। সেখানে দিনের তাপমাত্রা ছিল ৪৫.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে ৮.৩ ডিগ্রি বেশি।

মৌসম ভবন জানিয়েছে, শনিবার ঝাড়খণ্ডের ডালটনগঞ্জে তাপমাত্রা ছিল ৪৩.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ৩.৭ ডিগ্রি বেশি। ছত্তীসগঢ়ের রাজনন্দাগাঁওতে ছিল ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ৭.৬ ডিগ্রি বেশি।

শনিবার মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, মগরা, কলাইকুন্ডা, পানাগড়, ব্যারাকপুরে চলল তীব্র তাপপ্রবাহ। এই সব জায়গায় তাপমাত্রা ছিল যথাক্রমে, ৪৪.৫, ৪৪.৬, ৪২, ৪৩.৬, ৪৫.১, ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এ বছরের এপ্রিলে এখনও পর্যন্ত কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪০.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত এক যুগের হিসাবে এখনও চতুর্থ স্থানে এ বছরের গরম।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, রাজ্যে তাপপ্রবাহের পরিস্থিতি জারি থাকবে বুধবার পর্যন্ত। তাপপ্রবাহের সতর্কতা জারি করা হয়েছে। দুই ২৪ পরগনা, কলকাতা, হাওড়া, হুগলি এবং নদিয়ায় তাপপ্রবাহের সতর্কতা জারি করা হয়েছে। বাকি ন’টি জেলায় তীব্র তাপপ্রবাহ চলবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE