Advertisement
২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Opposition Alliance INDIA Meeting

১৭ ডিসেম্বর ‘ইন্ডিয়া’র দিল্লি-বৈঠক হচ্ছে না, স্থির নতুন দিনক্ষণ! আলোচনার বিষয়: আসন সমঝোতাসূত্র

‘ইন্ডিয়া’র পরবর্তী বৈঠকের স্থান-কাল নিয়ে যখন নানা জল্পনা চলছে, সেই সময় লালুপ্রসাদ জানিয়েছিলেন, ১৭ ডিসেম্বর পরবর্তী বৈঠক হবে। তবে ‘ইন্ডিয়া’ সূত্রের খবর, ওই দিন বৈঠক হচ্ছে না।

‘ইন্ডিয়া’র একটি বৈঠকে সীতারাম ইয়েচুরি, রাহুল গান্ধী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, নীতীশ কুমার এবং মল্লিকার্জুন খড়্গে (বাঁ দিক থেকে)।

‘ইন্ডিয়া’র একটি বৈঠকে সীতারাম ইয়েচুরি, রাহুল গান্ধী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, নীতীশ কুমার এবং মল্লিকার্জুন খড়্গে (বাঁ দিক থেকে)। —ফাইল চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ১০ ডিসেম্বর ২০২৩ ১৬:৩৩
Share: Save:

বিরোধী জোট ‘ইন্ডিয়া’র পরবর্তী বৈঠক হতে চলেছে আগামী ১৯ ডিসেম্বর। বিরোধী শিবিরের একটি সূত্র মারফত এমনটাই জানা গিয়েছে। আগেই শোনা গিয়েছিল, পটনা, বেঙ্গালুরু, মুম্বইয়ের পর ‘ইন্ডিয়া’র চতুর্থ বৈঠকটি হতে পারে রাজধানী দিল্লিতে। যদিও শেষ পর্যন্ত কারা কারা এই বৈঠকে যোগ দেবেন, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। পরে কংগ্রেসের তরফে সাধারণ সম্পাদক জয়রাম রমেশ ১৯ ডিসেম্বর বৈঠকের খবরটি নিশ্চিত করেন।

মধ্যপ্রদেশের সদ্যসমাপ্ত বিধানসভা নির্বাচনে আসন বণ্টন নিয়ে সমাজবাদী পার্টি (এসপি)-র সঙ্গে কংগ্রেসের যে মতান্তর প্রকাশ্যে চলে এসেছিল, তাতে অখিলেশ যাদব আর কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন বিরোধী জোটে থাকবেন কি না, তা নিয়েই প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল। তবে ওই সূত্রের খবর, পুরনো বিবাদ ভুলে বৈঠকে যোগ দেবেন মুলায়ম সিংহ যাদবের পুত্র। এই বৈঠকে বিভিন্ন রাজ্যে আসন রফার বিষয়টি চূড়ান্ত করে ফেলতে চাইছে বিরোধী দলগুলি। পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনী ফলে কংগ্রেসের সামগ্রিক ব্যর্থতা নিয়েও প্রশ্ন তুলতে পারে শরিক দলগুলি। সে ক্ষেত্রে কংগ্রেসকে জোট বজায় রাখতে অনেক নমনীয় অবস্থান নিতে হবে বলে মনে করছেন কেউ কেউ।

জেডি(ইউ) কিংবা তৃণমূলের মতো দলগুলি দীর্ঘ দিন ধরেই আসন সমঝোতার বিষয়টি চূড়ান্ত করার উপরে জোর দেওয়ার আর্জি জানিয়েছে। লোকসভা ভোটের যে আর বেশি দেরি নেই, সে কথাও তাদের তরফে স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে কংগ্রেসের একটি সূত্র মারফত, এই বিষয়ে বিলম্বেরও একটি ব্যাখ্যা দেওয়া হয়। বলা হয় যে, পাঁচ রাজ্যের ভোটে সাফল্য পেলে আসন সমঝোতায় দর কষাকষির বিষয়ে সুবিধাজনক অবস্থায় থাকত তারা। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে দর কষাকষিতে দুর্বল অবস্থানেই থাকতে হতে পারে হাত শিবিরকে।

তিন রাজ্যে কংগ্রেসের হারের পর সেই দর কষাকষিতে ‘ইন্ডিয়া’ভুক্ত আঞ্চলিক দলগুলি ‘সুবিধাজনক’ অবস্থানে রয়েছে। উত্তরপ্রদেশে অখিলেশ যাদব, বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিহারে লালুপ্রসাদ যাদব, নীতীশ কুমারদের সামনে সুযোগ এনে দিয়েছে কংগ্রেসকে ‘চাপে’ রাখার। পাঁচ রাজ্যের ভোটের ফলঘোষণার দিনই কংগ্রেসের তরফে জানানো হয়েছিল যে, ৬ ডিসেম্বর ‘ইন্ডিয়া’র পরবর্তী বৈঠক। কিন্তু অল্প সময়ের মধ্যে ডাকা বৈঠকে যোগ দেওয়ার ব্যাপারে নিজেদের অপারগতার কথা জানিয়ে দেন অধিকাংশ বিরোধী নেতা। শেষে কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খড়্গের বাসভবনে সংসদে কক্ষ সমন্বয় নিয়ে বিরোধী দলগুলির একটি ঘরোয়া বৈঠক হয়।

‘ইন্ডিয়া’র পরবর্তী বৈঠকের স্থান-কাল নিয়ে যখন নানা জল্পনা চলছে, সেই সময় আরজেডি প্রধান লালুপ্রসাদ জানিয়েছিলেন, ১৭ ডিসেম্বর বিরোধী জোটের পরবর্তী বৈঠক হবে। তবে ‘ইন্ডিয়া’র সূত্র মারফত জানা যাচ্ছে, ওই দিন নয়, পরবর্তী বৈঠক হচ্ছে ১৯ ডিসেম্বর। ১৮ তারিখে দিল্লি যাবেন বলে

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE