×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

সেরে উঠেছেন যাঁরা, প্রতিষেধক তাঁদেরও জরুরি

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ০৬:৫৭
ছবি পিটিআই।

ছবি পিটিআই।

আগামী মাস থেকেই শুরু হতে চলেছে ২৭ কোটি ভারতীয়ের টিকাকরণ অভিযান। তাই ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল ইয়ং অ্যাকাডেমি অব সায়েন্স (আইএনওয়াইএএস) সম্প্রতি প্রতিষেধক ঘিরে যাবতীয় সংশয় দূর করতে জ্ঞানটিকা বলে ওয়েবিনার সিরিজ় শুরু করেছে। প্রতিষেধক ঘিরে ভুল ধারণা ভাঙালেন ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব কেমিক্যাল বায়োলজি (আইআইসিবি)-র গবেষক উপাসনা রায়

প্রশ্ন: অনেকেই রটাচ্ছেন, করোনা প্রতিষেধক নিলে মহিলাদের সন্তানধারণে সমস্যা হতে পারে?

Advertisement

উত্তর: একেবারেই ভিত্তিহীন

প্রশ্ন: তাড়াহুড়ো করে তৈরি করা হয়েছে বলে প্রতিষেধক সুরক্ষিত নয়?

উত্তর: প্রতিষেধক তৈরির সময় ও ছাড়পত্র দেওয়ার সময়ে সব ধরনের সুরক্ষাবিধি মাথায় রেখেই ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হয়। তা ছাড়া, সব ওষুধের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া থাকে।

প্রশ্ন: প্রতিষেধক কি রোগ ঠেকাতে পারে?

উত্তর: প্রতিষেধকের ফলে অনেক রোগ মানব ইতিহাস থেকে মুছে ফেলা সম্ভব হয়েছে।

প্রশ্ন: করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তির প্রতিষেধকের প্রয়োজন নেই?

উত্তর: এক বার সংক্রমিত হলেই ভবিষ্যতে যে ওই ব্যক্তি আর সংক্রমিত হবেন না তা নিশ্চিত ভাবে বলা সম্ভব নয়। তা ছাড়া, প্রত্যেকের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আলাদা। তাই যাঁরা করোনা থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন, তাঁদেরও প্রতিষেধকের প্রয়োজন রয়েছে।

প্রশ্ন: প্রতিষেধক নিলে মাস্ক পরার প্রয়োজন নেই?

উত্তর: ভুল। মাস্ক সর্বদা পরে থাকার প্রয়োজন রয়েছে।

প্রশ্ন: প্রতিষেধক নিলেও করোনা হতে পারে?

উত্তর: প্রতিষেধক নির্দিষ্ট সময় অন্তর এবং পুরো ডোজ় নিতে হবেই। এবং প্রতিষেধকের ক্ষমতা যত দিন থাকবে, করোনা হওয়ার সম্ভাবনা নেই। ভারতে ব্যবহৃত প্রতিষেধকগুলি নিষ্ক্রিয় ভাইরাস বা ভাইরাসের প্রোটিন থেকে তৈরি করা হয়েছে।

প্রশ্ন: প্রতিষেধকের এক ডোজ়ই যথেষ্ট?

উত্তর: একেবারেই না। নির্দিষ্ট সময় অন্তর চিকিৎসকের পরামর্শ মতো সব ক’টি ডোজ় নিতে হবে। তবেই ওই ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়ার ক্ষমতা শরীরে তৈরি হবে।

প্রশ্ন: কোনও ব্যক্তির রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী হলে তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হবেন না?

উত্তর: ভুল। যে হেতু শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এই ভাইরাসের সঙ্গে পরিচিত নয়, তাই যে কোনও স্বাস্থ্যবানও আক্রান্ত হতে পারেন।

Advertisement