• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

করোনাভাইরাস: শুধুমাত্র চিনেই দেড় হাজার ছুঁল মৃতের সংখ্যা

corona
উহানের একটি হাসপাতালে। ছবি: রয়াটার্স।

Advertisement

মৃত্যুমিছিল থামছেই না। গত কাল ফের ১২১ জনের মৃত্যু হল চিনে। নোভেল করোনাভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা ছাড়াল দেড় হাজার। ৫০৯০টি নতুন সংক্রমণের খবর মিলেছে। শুধু হুবেই প্রদেশে মোট ৬৫ হাজার মানুষ সংক্রমিত হয়েছেন। সংক্রমিত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৬ স্বাস্থ্যকর্মীর।

সম্প্রতি একটি বেসরকারি রিপোর্টে দাবি করা হয়েছিল, আসল মৃতের সংখ্যা চেপে দিচ্ছে চিন সরকার। যখন ৩০০ জন মারা গিয়েছিলেন, তখনই আসলে ২৫ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। এ বার আমেরিকাও অভিযোগ তুলল, গোটা বিশ্বকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ে তথ্য জানানোর বিষয়ে স্বচ্ছতা বজায় রাখছে না চিন। বেজিং সরকার অবশ্য সব অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তাদের বক্তব্য, ভাইরাস রুখতে তারা আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলির সঙ্গে যথেষ্ট দায়িত্ব নিয়ে কাজ করছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ইকনমিক কাউন্সিলের ডিরেক্টর ল্যারি কুডলো সম্প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ভাইরাস রুখতে চিনের অভিযানে তাদের ডাকা হয়নি। ল্যারির আরও অভিযোগ, সমস্ত তথ্যও যথাযথ ভাবে প্রকাশ করছে না সরকার। বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তরও তারা দেয়নি বলে অভিযোগ। ল্যারির কথায়, ‘‘করোনাভাইরাস নিয়ে আমরা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে কাজ করতে খুবই আগ্রহী। কিন্তু ওরা আমাদের কিছু করতেই দিচ্ছে না। আমরা বুঝতেই পারছি না ওরা কী চায়! কিন্তু এটা জানি, ও দেশে প্রতি দিন আরও এবং আরও বেশি লোক আক্রান্ত হচ্ছেন।’’

করোনা-ছায়া


• চিনে মৃত অন্তত ১৫০০।
• বৃহস্পতিবারেই ১২১ জন মারা গিয়েছেন।
• ৬ স্বাস্থ্যকর্মীরও মৃত্যু।
• শুধু হুবেই প্রদেশে ৬৫ হাজার সংক্রমিত। 
• জাপানের জাহাজে আরও দুই ভারতীয় আক্রান্ত।
• চিন ফেরত এক অসমিয়া ছাত্রী হাসপাতালে ভর্তি। 
• কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব প্রীতি সুদান জানান, ভারতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে।
• মঙ্গলবার বেঙ্গালুরু সফর বাতিল করে ওষুধ, গাড়ি, ইলেকট্রনিক্স শিল্পে প্রভাব নিয়ে দিল্লিতে বৈঠক নির্মলা সীতারামনের। 

বিদেশেও ৫০৫টি সংক্রমণের খবর মিলেছে বলে জানিয়েছে চিনের সরকারি সংবাদমাধ্যম। আমেরিকায় আক্রান্ত ১৫ জন। সংক্রমণ ঠেকাতে চিনের সঙ্গে সব দেশ বিমান পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়ার পরে সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন চিনের প্রেসিডেন্ট শি চিনফিং। চিনকে ‘একঘরে’ করার জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছিলেন, ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নিতে। আমেরিকা চিনে তাদের বিশেষজ্ঞ পাঠানোর কথা বলেছিল। কিন্তু অনুরোধ রাখেনি চিন। আমেরিকার বিশেষজ্ঞকে দেশে ঢুকতে দেয়নি তারা। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞ দলকে প্রবেশের অনুমতি দিয়েছে চিন। গত সোমবার ১৫ জনের দল পৌঁছেছে।                    

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন