•  সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ভারতীয়দের আনতে ইরানে সেনার বিমান

Coronavirus
গাজিয়াবাদের হিণ্ডন ঘাঁটি থেকে বিমান ছাড়ার আগের মুহূর্ত। ছবি: পিটিআই

ইরানে আটকে পড়া ভারতীয়দের উদ্ধার করতে বায়ুসেনার সি-১৭ গ্লোবমাস্টার বিমান পাঠাল ভারত। সোমবার রাত আটটার সময়ে গাজ়িয়াবাদের হিণ্ডন ঘাঁটি থেকে ছেড়েছে ভারতীয় বায়ুসেনার সব থেকে বড় এই বিমানটি। 

ইরানে দু’হাজারেরও বেশি ভারতীয় বাস করেন। সেই দেশে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা সাত হাজার ছাড়িয়েছে। মারা গিয়েছেন ২৩৭ জন। এই অবস্থায় সেখান থেকে ভারতীয়দের সরিয়ে আনতে উদ্যোগী হয়েছে বায়ুসেনা। এই বিমানটিতে করেই গত ২৭ ফেব্রুয়ারি চিনের উহান থেকে ৭৬ জন ভারতীয় এবং ৩৬ জন বিদেশিকে উদ্ধার করে আনা হয়েছিল। এ ছাড়া, চিনের প্রচুর চিকিৎসার সরঞ্জামও পাঠানো হয়েছিল সি-১৭ গ্লোবমাস্টার করে। 

ইরানে আটকে পড়া ভারতীয়দের মধ্যে কারও করোনা-সংক্রমণ হয়েছে কিনা জানতে স্বাস্থ্য মন্ত্রক ঠিক করেছিল, ইরানে অস্থায়ী ল্যাবরেটরি তৈরি করে সেখানেই ভারতীয়দের দেহরস পরীক্ষা করা হবে। কিন্তু নানা দ্বিপাক্ষিক জটিলতায় তা হয়ে ওঠেনি। তারপরে তিন দিন আগে বায়ুসেনার একটি ছোট বিমান গিয়ে ৪০০ জনের দেহরসের নমুনা ভারতে নিয়ে আসে। তারপরে আজ ভারতীয়দের উদ্ধারে বিমান গেল ইরানে। কত জন ভারতীয়কে ইরান থেকে নিয়ে আসা হবে, বা এখানে আনার পরে তাঁদের কত দিন কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হবে, তা এখনও জানানো হয়নি। 

আরও পড়ুন: মোদীকে তিক্ত-সফর থেকে বাঁচাল করোনা​

আজ সকালে শ্রীনগরে পৌঁছন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। করোনা সংক্রমণের কারণে ইরানে আটকে থাকা কাশ্মীরি তীর্থযাত্রীদের পরিবারবর্গের সঙ্গে দেখা করে কথাবার্তা বলেন তিনি। ডাল লেকের ধারে কাশ্মীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে চলে এই আলাপচারিতা।  জয়শঙ্কর পরে টুইট করে বলেছেন, ‘‘ইরানে নিযুক্ত ভারতীয় দূতাবাসের অগ্রাধিকার হল আটকে থাকা ভারতীয় তীর্থযাত্রী এবং ছাত্রদের নিরাপদে দেশে ফেরানো। এ ব্যাপারে সব রকম ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’’ তার কিছু ক্ষণ পরেই ইরানে বিমান পাঠানোর কথা ঘোষণা করে স্বাস্থ্য মন্ত্রক। ইরানে ভারতীয় মৎস্যজীবীদের সঙ্গে দূতাবাস নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে বলেও জানান বিদেশমন্ত্রী। 

এ দিকে, বেড়েই চলেছে ভারতে নোভেল করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯-এ আক্রান্তের সংখ্যা। সোমবার দেশে আক্রান্তের মোট সংখ্যা ৪৫। তবে আশার কথা, এখনও কোনও মৃত্যু ঘটেনি। গতকাল পর্যন্ত ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৩৯। আজ উত্তরপ্রদেশ, জম্মু-কাশ্মীর, দিল্লি, পঞ্জাব, কর্নাটক ও কেরল থেকে একটি করে সংক্রমণের খবর আসে। স্বাস্থ্য মন্ত্রক আজ একটি বিবৃতি জারি করে বিদেশ থেকে আসা সব যাত্রীকে অনুরোধ করেছে, তাঁরা যেন তাঁদের গত কয়েক সপ্তাহের আন্তর্জাতিক সফরের বিষয়ে ভারতীয় কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দেন। ইটালি বা ইরানের মতো দেশ থেকে এলে সংক্রমণের আশঙ্কা অনেক বেড়ে যেতে পারে। গতকাল কেরলের যে পরিবারটিতে করোনা-সংক্রমণের হদিস মিলেছিল, তারা দু’দিন আগেই ইটালি থেকে ফেরে। 

আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় জানিয়েছে, দু’সপ্তাহ পিছিয়ে দেওয়া হচ্ছে দূরশিক্ষার পরীক্ষা। ১৫ মার্চের বদলে পরীক্ষার নতুন দিন ১ এপ্রিল ধার্য করা হয়েছে।  গাঁধীর ডান্ডি যাত্রার বার্ষিকী পালনের জন্য গুজরাতে ‘সন্দেশ যাত্রা’র কথা ঘোষণা করেছিল কংগ্রেস। রবিবার দল জানায়, ১২ মার্চ থেকে ৬ এপ্রিল পর্যন্ত হবে এই যাত্রা। যাবেন সনিয়া গাঁধী, রাহুল গাঁধী, প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরাও। কিন্তু চব্বিশ ঘণ্টা কাটতে না-কাটতেই কংগ্রেস ঘোষণা করল, আপাতত হচ্ছে না সেই যাত্রা। কারণ, করোনাভাইরাস। 

গতকাল দুবাই থেকে মেঙ্গালুরু আসা এক যাত্রীর করোনাভাইরাস সংক্রমণ সন্দেহ করা হয়েছিল। বিমানবন্দর থেকে তাঁকে হাসপাতালে যেতে বলা হয়। কিন্তু তারপরেই বেপাত্তা হয়ে যান তিনি। খোঁজ চলছে। 

গতকাল কাতার সরকার ভারত থেকে আসা যাত্রীদের দোহায় প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল। ভারত ছাড়া আরও ১৩টি দেশের উপরে এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কাতার। দেশগুলি হল— বাংলাদেশ, চিন, মিশর, ইরান, ইরাক, লেবানন, নেপাল, পাকিস্তান, ফিলিপিন্স, দক্ষিণ কোরিয়া, শ্রীলঙ্কা, সিরিয়া এবং তাইল্যান্ড। আগেই নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছিল ইটালির উপরে। ভারত-সহ এই ১৫টি দেশ থেকে উড়ান পরিষেবা বন্ধ রেখেছে কাতার এয়ারওয়েজ়। আজ ইন্ডিগো ঘোষণা করেছে, তারাও দোহার উড়ান স্থগিত রাখছে।

আরও পড়ুন: শান্তিনিকেতনের বসন্তোৎসব অসুন্দরের মোকাবিলার উৎসব

করোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পর্যটন ব্যবসা। আজ ট্র্যাভেল এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়ার পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় সরকারকে জানানো হয়েছে, গত কয়েক সপ্তাহে ৭০-৮০ শতাংশ বুকিং বাতিল হয়েছে। সরকারের কাছে তাদের, পর্যটন ব্যবসার এই বিপুল ক্ষতি মেটাতে যেন তহবিল তৈরি করা হয়। এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেস জানিয়েছে, ১২ থেকে ৩১ মার্চ তারা বিনা জরিমানায় টিকিট পাল্টানোর সুযোগ দেবে যাত্রীদের। আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার (আইএমএফ)-এর মুখ্য অর্থনীতিবিদ গীতা গোপীনাথ বলেছেন, করোনার জেরে ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতি চাঙ্গা করতে বিভিন্ন দেশের সমন্বয় এবং আন্তর্জাতিক ভাবে পরিকল্পনা প্রয়োজন।

বিদেশে করোনা


• কোভিড ১৯ বা নোভেল করোনাভাইরাসকে বারবার ‘উহান ভাইরাস’ বলে কেন উল্লেখ করছেন মার্কিন বিদেশসচিব মাইক পম্পেয়ো, ক্ষুব্ধ বেজিং
• দেশে জরুরি অবস্থা জারি করার সিদ্ধান্ত জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের 
• জার্মানিতে আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার ছাড়াল
• জেলের ভিতরে আক্রান্তদের চিকিৎসা করা সম্ভব নয়, তাই ৭০ হাজার বন্দিকে সাময়িক মুক্তি দিল ইরান
• আফ্রিকায় প্রথম করোনা-মৃত্যু মিশরে, জার্মান পর্যটক
• জেলে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে, মুক্তির দাবিতে দাঙ্গা ইটালির বিভিন্ন সংশোধনাগারে
• চিনে আরও ২২ জনের মৃত্যু 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন