তিনি নিখোঁজ ছিলেন রবিবার থেকে। সোমবার গাড়ি দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয় তাঁর প্রাক্তন প্রেমিকের। আর মঙ্গলবার মিলল নিখোঁজ ৩২ বছরের দন্তচিকিৎসক প্রীতি রেড্ডির দেহ। ভারতীয় বংশোদ্ভূত এই চিকিৎসকের খুন ঘিরে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে ঘনাচ্ছে রহস্য। 

মঙ্গলবার নিজেরই গাড়িতে একটি সুটকেসের মধ্যে মেলে প্রীতির দেহ। কিংসফোর্ডে গাড়িটি দাঁড় করানো ছিল। নিউ সাউথ ওয়েলস পুলিশ জানিয়েছে, দেহে একাধিক ছুরির আঘাত রয়েছে। 

প্রীতি নিখোঁজ হওয়ার পরেই পুলিশ তাঁর প্রাক্তন প্রেমিক হর্ষ নার্দেকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল। ভারতীয় বংশোদ্ভূত হর্ষও পেশায় দন্তচিকিৎসক। সোমবার রাতে নিউ ইংল্যান্ড হাইওয়েতে দুর্ঘটনায়  গাড়িতে আগুন লেগে মৃত্যু হয় হর্ষের। প্রাথমিক ভাবে পুলিশের অনুমান, প্রীতিকে খুনের পিছনে হর্ষের হাত রয়েছে। তাঁর গাড়ির দুর্ঘটনা ঘটেনি, ঘটানো হয়েছে। এক পুলিশ কর্তা বলেন, ‘‘ঠিক কী ঘটেছে, তা এখনই বলা যাচ্ছে না। আমরা জানতে পেরেছি, হর্ষ এবং প্রীতি দেখা করেছিলেন। তার পরে তাঁরা কোথায় গিয়েছিলেন, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’’ 

পুলিশ জানিয়েছে, রবিবার সিডনির জর্জ স্ট্রিটে একটি দোকানের সামনে লাইনে শেষ দেখা গিয়েছিল প্রীতিকে। তারপর তিনি মার্কেট স্ট্রিটের দিকে চলে যান। সেখানেই একটি হোটেলে এক ব্যক্তির সঙ্গে ছিলেন তিনি। দিনের বেলা ব্যস্ত সময়ে কী ভাবে প্রীতি নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন, সেটিও ভাবাচ্ছে পুলিশকে।