পার্লামেন্ট ভেঙে সময়ের আগেই সাধারণ নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মৈত্রীপালা সিরিসেনা। ইতিমধ্যেই এই বিষয়ের উপরে বিজ্ঞপ্তিতে স্বাক্ষর করেছেন তিনি। অগস্টের মাঝামাঝি দ্বীপরাষ্ট্রে সাধারণ নির্বাচন হবে বলে সরকারি সূত্রে খবর।

জানুয়ারিতে প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিঙ্ঘের পার্টির মদতে সংখ্যালঘু সরকার গড়েছিলেন সিরিসেনা। প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপক্ষের পতনে অবাক হয়েছিলেন অনেকেই। সাধারণ নিয়ম অনুযায়ী, ২০১৬ সালের এপ্রিলে শ্রীলঙ্কায় সাধারণ নির্বাচন হওয়ার কথা। কিন্তু ২৩ এপ্রিলই আগে পার্লামেন্ট ভাঙার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন সিরিসেনা। তবে সাংবিধানিক ও নির্বাচনী সংস্কার পাশ করানোর জন্য কিছুটা বেশি সময় নিতে বাধ্য হয়েছেন তিনি। আগে ভোট করার জন্য সিরিসেনাকে চাপ দিচ্ছিল রনিল বিক্রমাসিঙ্ঘের দলও। 

রাজাপক্ষের পতনের পিছনে ‘বিদেশি শক্তি’র হাত নিয়ে জল্পনা হয়েছে বিস্তর। তিনি নিজেও ভারত ও আমেরিকার দিকে আঙুল তুলেছিলেন। সাধারণ নির্বাচনকে হাতিয়ার করে রাজাপক্ষে ফের কলম্বোর গদিতে ফেরার চেষ্টা করবেন বলেই মনে করছেন দ্বীপরাষ্ট্রের রাজনীতিকেরা। ভোের পরে কলম্বোর সঙ্গে কূটনৈতিক সমীকরণ নিয়ে নতুন ভাবে চিন্তা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে সাউথ ব্লকও।                  


 


‘সবার শৌচাগার’ প্রকল্পে সাফল্যের জন্য নদিয়ার জেলাশাসক পি বি সেলিমকে পুরস্কৃত করেছে রাষ্ট্রপুঞ্জ।

কলম্বিয়ার মেডেলিনে অভিনব নাগরিক পরিষেবা বিষয়ে নিজের অভিজ্ঞতা জানাচ্ছেন সেলিম।—নিজস্ব চিত্র।