১৪৫ বছর আগে আরও অনেকের সঙ্গে তাঁর পূর্বপুরুষও কর্মসূত্রে সুদূর লাতিন আমেরিকার ছোট্ট দেশ সুরিনামে পাড়ি দিয়েছিলেন কলকাতা থেকে। সেই স্মৃতিতে এর আগেই বন্দর এলাকায় তৈরি হয়েছে সৌধ। কলকাতার সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে এ বার সুরিনামে দুর্গাপুজো আয়োজন করার জন্য রাজ্যের সাহায্য চাইলেন ভারতে সুরিনামের রাষ্ট্রদূত আশনা কানহাই। 

পশ্চিমবঙ্গ-সহ পূর্বাঞ্চলের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক গড়তে লাতিন আমেরিকার ১৮টি দেশের কূটনীতিকদের মধ্যে বৃহস্পতিবার ইন্ডিয়ান চেম্বারের সভায় ছিলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কানহাই-ও। বিখ্যাত ক্যারিবীয় ক্রিকেটারের সঙ্গে নামের মিলের চেয়েও তিনি বেশি উৎসাহী ছিলেন তাঁর কলকাতা-যোগের কথা বলতেই। সুরিনাম ছিল ডাচ কলোনি। সেই সময় মূলত উত্তরপ্রদেশ ও বিহারের প্রায় ৩৪ হাজার বাসিন্দাকে সেখানে শ্রমিক হিসেবে নিয়ে যাওয়ার জন্য তৎকালীন ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করেছিল ডাচ সরকার। সেই সূত্রেই বহু ভারতীয় সে দেশে গিয়ে বসত করেন। আশনার পূর্বপুরুষ তাঁদেরই একজন।

দুর্গাপুজোর পরের কার্নিভালে রাজ্য সরকার ইদানীং বিদেশি কূটনীতিকদের আমন্ত্রণ জানায়। কলকাতার পুজো দেখে অভিভূত  আশনা জানান, সুরিনামে এখন ছোট করে পুজো হয়। কিন্তু তাঁরা পুজোর সব পদ্ধতি হয়তো ঠিক মতো পালন করতে পারেন না। আগামী বছর সুরিনামে বড় করে দুর্গাপুজো করতে আগ্রহী তাঁরা। তাই  রাজ্যের অর্থমন্ত্রীর অমিত মিত্রর কাছে তাঁর প্রস্তাব, সেই উদ্যোগে রাজ্য পাশে থাকুক। সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় গাঁটছড়াও গড়ে উঠুক। তবে পুজোর বিচারক হতে নারাজ আশনা। তিনি বলেন, ‘‘দু’একটি পুজোর উদ্যোক্তা আমায় বিচারক হতে অনুরোধ করেছিলেন। কিন্তু ভগবানের বিচার কী করব?’’