এই বুঝি খবর এল! ফের খাপ খুললেন কিম  জং উন। জন্মদিনে নির্ঘাত আরও একটা আন্তর্মহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়তে চলেছে উত্তর কোরিয়া। কিন্তু কই এখনও হলো না তো! তা হলে বোধ হয় বেলা আরও বাড়ার অপেক্ষা করছে পিয়ংইয়ং। কিছু তো একটা ঘটছেই। আজ, ৯ সেপ্টেম্বর দিনভর মোটামুটি এমনই চাপা উদ্বেগ বহাল রইল কোরীয় উপদ্বীপে। যার রেশ ছুঁয়ে গেল সোল, টোকিও এমনকী ওয়াশিংটনকেও। বিপদ আঁচ করে আগেভাগেই পূর্ব চিন সমুদ্রের উপর দিয়ে এক ঝাঁক মার্কিন বোমারু বিমানের সঙ্গে যৌথ মহড়া সেরে নিল জাপানি বাহিনী। আর বেপরোয়া কিমকে রুখতে সে দেশের উপর আরও এক প্রস্ত আর্থিক নিষেধাজ্ঞা চাপাতে এ দিনই ভোটাভুটি চেয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের কাছে আনুষ্ঠানিক ভাবে আর্জি জানাল আমেরিকা। চিন ও রাশিয়ার তরফে বাধা আসা সত্ত্বেও।

স্বাধীন দেশ হিসেবে উত্তর কোরিয়ার এ বারের জন্মদিনেও কিম যে বড়সড় একটা ধামাকা চাইবেন, সপ্তাহ খানেক আগে থেকেই তা বলে আসছিল সোল। যেন শক্তি প্রদর্শনের ক্ষেত্রে এটাই তাদের ট্র্যাডিশন! ঠিক যে ভাবে গত বছর আজকের দিনে পঞ্চম পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা করেছিলেন কিম। আজ তাই দিনের শুরুতে উত্তর কোরিয়ায় সরকারি সংবাদমাধ্যমের প্রথম পাতার সম্পাদকীয়তে তেমন ইঙ্গিত মিলতেই নড়ে বসে আমেরিকা। সোমবারই রাষ্ট্রপুঞ্জে আর্থিক নিষেধাজ্ঞা সংক্রান্ত ভোটাভুটি চাইছেন ট্রাম্প।

গত ২৮ জুলাই প্রথম আন্তর্মহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছিল উত্তর কোরিয়া। বিশেষজ্ঞদের দাবি, সেই ক্ষেপণাস্ত্র অনায়াসে আমেরিকার পশ্চিম উপকূলকে নিশানা করতে পারে। আজকের সম্পাদকীয়তে এমনই আরও উন্নত ক্ষেপণাস্ত্র তৈরির পক্ষে সওয়াল করা হয়েছে।