দুর্গা পুজোর কয়েকটা দিন আড্ডা, প্যান্ডেল থেকে প্যান্ডেল ঘুরো বেরানো, দিনদুপুরেও ঠা ঠা রোদে প্রসাধনীর চটক— সব মিলিয়ে ত্বক বেশ হা ক্লান্ত। যদিও উৎসবের মরসুম এখনও চলছে। কালী পুজো, ভাইফোঁটা, জগদ্ধাত্রী পুজো ছুঁয়ে শীতের মরসুমেও বাঙালি থাকবে উৎসব ও উদযাপনের মেজাজে। এ দিকে দুর্গা পুজোর সময় সূর্যের কড়া তাপ আর এই কড়া রোদে ঘোরার সময় তিন ঘণ্টা অন্তর অন্তর সানস্ক্রিনের ব্যবহার না করায় অনেকের ত্বকেই পড়েছে কালো বা লালচে ছোপ। পুজো মেটার পর ট্যান রিমুভাল ফেসিয়াল করানোর কথাও ভেবে রেখেছেন অনেকেই। তবে ঘন ঘন ফেশিয়াল ত্বকের জন্য যেমন ক্ষতিকারক, তেমনই ট্যান রিমুভাল ফেশিয়ালে পকেটেও পড়ে যথেষ্ট চাপ।

পুজোর আগেই সেরেছেন ফেশিয়াল, আবারও দিনকয়েকের মধ্যেই বিভিন্ন রাসায়নিক জিনিস ব্যবহার করে স্যাঁলোতে ফেশিয়াল করানোর চেয়ে ভরসা রাখুন প্রাকৃতিক কিছু উপায়ে। হাত-পায়ের কালো রোদে পোড়া ভাব বা ট্যান থেকে ত্বককে বাঁচাতে প্রাকৃতিক যত্নের কোনও বিকল্প হতে পারে না। ট্যান সরাতে তাই কোন কোন উপায়ে ভরসা রাখতে হবে সেটুকু জেনে রাখলে আখেরে লাভ নিজেরই।

এক এক জনের ত্বকের ধরন এক এক রকম। তাই সেই ত্বকের যত্নের কায়দাও হবে আলাদা। বয়স ৩০ পেরলে সাবধান হতে হবে আরও বেশি, কারণ এই বয়সে ত্বকের পরিবর্তন হয় সবচেয়ে বেশি। কোন কোন ত্বকের জন্য কেমন প্যাক ব্যবহার করলে শরীরের ট্যান দূর হবে রইল তারই হদিশ।

আরও পড়ুন: ঘন ঘন অ্যাসিডিটি ও বদহজমের সমস্যা? সামলে ফেলুন এ সব উপায়ে

শুষ্ক ত্বক: যাঁদের হাত-পায়ের ত্বক খুবই শুষ্ক এবং ত্বকে রোদে পোড়া ভাব রয়েছে, তাঁরা সয়াবিন পাউডার, দুধের সর, কাঁচা হলুদ, গাজরের রস একসঙ্গে মিক্সিতে বেটে নিন। এ বার সেই প্যাকটি মাসাজ করে ত্বকে লাগিয়ে নিন। রাখুন ১০ থেকে ১৫ মিনিট। শুকিয়ে এলে পরিষ্কার ঠান্ডা জল দিয়ে প্যাকটি ধুয়ে ফেলুন।

ঘরোয়া উপাদানেই সারুন ত্বকের যত্ন। ছবি: আইস্টক।

স্বাভাবিক ত্বক: যাঁদের ত্বক স্বাভাবিক, তাদের জন্য এখানে দুটি প্যাক বিশেষ উপযোগী। কাঁচা হলুদ বাটার সঙ্গে দুধ, মধু ও অলিভ অয়েল একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। এ বার সেই প্যাকটি ত্বকে রেখে ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

এ ছাড়াও ডিমের কুসুম, এক টেবিল চামচ বেসন ও দুধ একসঙ্গে মিশিয়ে নিল  সহজেই তৈরি হয়ে যাবে একটি ঘরোয়া ট্যান রিমুভিং প্যাক। রোদে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া স্থানে প্যাকটি লাগিয়ে মিনিট পনেরো রেখে দিন। এর পর ঠান্ডা জল দিয়ে ত্বককে ভাল করে ধুয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে চার বার ব্যবহার করলে ত্বকের পোড়া ভাব দূর হবে।

আরও পড়ুন: পুজোয় অনিয়মে ওজন বেড়েছে? মেদ ঝরাতে পাতে নিন এই অব্যর্থ খাবার

তৈলাক্ত ত্বক: যাঁদের ত্বক খুবই তৈলাক্ত, তাঁরা মসুর ডাল বাটার সঙ্গে শসার রস ও ডিমের সাদা অংশ মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। মিনিট  কুড়ি ত্বকে লাগিয়ে রাখার পর ঠান্ডা জল দিয়ে প্যাকটি ঘষে ঘষে ধুয়ে ফেলতে হবে। দশ থেকে পনেরো দিন এই প্যাকটি ব্যবহার করলেই আপনি আকাঙ্ক্ষিত ফল পেতে শুরু করবেন।