মেক আপ, চড়া রোদ— সারা বছর কত অত্যাচারই না সয় আমাদের ত্বক! মাসে একবার পার্লারে ঢুঁ মারলেও কিন্তু হারানো জেল্লা ফেরাতে তা যথেষ্ট নয়। তার উপর পুজোয় মেক আপ থেকে শুরু করে দিনভর ঘোরাঘুরি— সব অনিয়মই সয়েছে ত্বক

তাই ত্বকের যত্নের কথা ভাবতে হলে এখন থেকেই কিছু নিয়ম মেনে চলুন। সারা বছর এ সব মনলে ত্বক জেল্লাদার যেমন থাকবে, তেমনই টুকটাক অনিয়মেও ত্বকের খুব একটা ক্ষতি হবে না।

রূপবিশেষজ্ঞ শর্মিলা সিংহ ফ্লোরার মতে, ‘‘ভাল ত্বক পেতে হলে খাদ্যাভ্যাসে বদল আনাও খুব জরুরি। তেল, মশলা যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন। তার জায়গায় তাজা সব্জিও ফল রাখুন। পর্যাপ্ত জলও খেতে হবে। তবে এগুলো ছাড়াও রোজনামচায় প্রবেশ করাতে হবে বেশ কিছু নিয়ম। জানেন সে সব কী কী?

আরও পড়ুন: ‘ঘুমপাড়ানি মাসিপিসি’-র ভূমিকায় এ বার মোবাইল অ্যাপ! অনিদ্রা সারাবে সাধের ফোন

  • দীর্ঘ ক্ষণ এসি-তে বসে কাজ করেন? তা হলে সময় করে ২-৩ বার মুখ ধুয়ে নিন।

  • নিজের ত্বককে চিনতে শিখুন। অয়েল গ্ল্যান্ড ওভার অ্যাক্টিভ হলে ত্বকে তেলাভাব আসে। আর লেস অ্যাক্টিভ হলে শুষ্ক হয় ত্বক। আপনার ত্বক কেমন আগে তা বুঝে নিন। সেই মতো পদক্ষেপ করুন।

  • মুখের চামড়া নরম হয়। স্ক্রাব দিয়ে বেশি না ঘষাই উচিত।

  • সানস্ক্রিন লাগানোর সময় তাতে এক ফোঁটা জল মিশিয়ে নিন। এতে ঘাম হবে না। আবার জল এমনিতেই ময়শ্চারাইজার। তাই উপকার পাবেন।

  • শুধু সানস্ক্রিনই নয়, মুখে যে ক্রিমই ব্যবহার করুন না কেন, তাতে একটু জল মিশিয়ে নেবেন। ত্বক নরম থাকবে।

  • প্রসাধনী ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু কথা মাথায় রাখবেন। সে সবের উপাদান ১০০ শতাংশ হার্বাল হলে ভাল।

  • যাঁদের তৈলাক্ত ত্বক, তাঁরা চারকোল এবং পার্ল ফেসওয়াশ ব্যবহার করুন। এতে তেলাভাব কিছুটা হলেও কমে।

  • ফ্রুট প্রোটিন আবার শুষ্ক ত্বকের জন্য। তৈলাক্তও নয় আবার শুষ্কও নয়, এমন ত্বক যাঁদের তাঁরা গোল্ড এবং রেডিয়ান্ট গ্লো প্যাক ব্যবহার করলে ভাল।

আরও পড়ুন: ‘ওয়র্ল্ড এগ ডে’-তে ভেঙে ফেলুন ডিম নিয়ে এত দিনের এ সব ভুল ধারণা

  • সময় পেলে ঘরোয়া টোটকাও ট্রাই করে দেখতে পারেন। যেমনত্বক শুষ্ক হলে পাকা পেঁপে, ৩-৪ চিমটে কফি ও গুঁড়ো দুধের প্যাক তৈরি করে মুখে লাগান। পাকা কলা ও মধুর প্যাকও শুষ্ক ত্বকের জন্য ভাল। অলিভ অয়েল ও মধুর প্যাকও শুষ্ক ত্বকে কাজ দেয়। তৈলাক্ত ত্বক হলে আদার রস, মধু, লেবু এবং চালের গুঁড়ো মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে লাগান।

  • ব্রণ দূর করতে মুলতানি মাটির সঙ্গে লবঙ্গের জল মিশিয়ে মুখে লাগান।

  • তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণর সমস্যা বেশি। নিয়ম করে চিরতার জল খেলে তা কমে।