• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আরও ৮০টি স্পেশাল ট্রেন, রেলে সময়সূচিতে আসছে বদল

indian rail
নিউ নর্মালে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে, নতুন সময়ে (জিরো টাইম টেবিল) ছুটবে রেল। ফাইল চিত্র।

করোনা আবহে ৮০টি স্পেশাল ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নিল ভারতীয় রেল বোর্ড। আগামী ১২ সেপ্টেম্বর থেকে বিভিন্ন স্টেশন থেকে ট্রেনগুলি গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা দেবে। অনলাইনে আসন সংরক্ষণ করা যাবে ১০ সেপ্টেম্বর থেকে। সেই সঙ্গে গত ৫০ বছরের ভারতীয় রেলের পুরনো সময়সূচিতেও বদল আনা হচ্ছে। নিউ নর্মালে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে, নতুন সময়ে (জিরো টাইম টেবিল) ছুটবে রেল। শনিবার রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান বিনোদকুমার যাদব ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে এ কথা জানান।

আলোচনায় বুলেট ট্রেন থেকে শুরু করে রেলের পরিকাঠামো উন্নয়ন এবং ট্রেনের নতুন সময়সূচি (জিরো টাইম টেবিল) নিয়ে তিনি সবিস্তারে বলেন। এ রাজ্যে মেট্রো পরিষেবা নিয়ে বিনোদকুমার যাদব বলেন, “রাজ্য সরকারের সঙ্গে মেট্রোর বৈঠক হয়েছে। পরের সপ্তাহ থেকেই কলকাতায় মেট্রো চলবে।” স্পেশাল ট্রেন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আরও ৮০টি ট্রেন চালানো হবে। ১০ সেপ্টেম্বর থেকে আসন সংরক্ষণ করা যাবে।”

ভারতীয় রেলের সময়সূচিতেও আমূল পরিবর্তন আসছে। বিনোদকুমার বলেন, ‘‘কোনও ট্রেন বন্ধ করা হবে না জিরো টাইম টেবিলের জন্য। ৫০ বছরের বেশি সময় ধরে একই টাইমে ট্রেন চলছে। অনেক রুটে তার জন্য সমস্যাও হচ্ছে। নতুন ভাবে একটি সময় সূচি তৈরি হচ্ছে। তার ফলে আরও দ্রুত গন্তব্যে পৌঁছবেন যাত্রীরা। কোনও ডিভিশনে নতুন ট্রেনও চলতে পারে। কম সময়ে ট্রেন পাওয়া যাবে।”

আরও পড়ুন- চিনের আগ্রাসী আচরণের প্রতিবাদ করেও আলোচনাতেই সায় রাজনাথের

২০১৭ সালের অক্টোবরেই গুজরাতের সবরমতী স্টেশন থেকে ভারতের প্রথম বুলেট ট্রেন প্রকল্পের শিলান্যাস করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। প্রায় ১ লক্ষ ৮ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে মুম্বই-আমদাবাদ বুলেট ট্রেন প্রকল্পে। ২০২৩ সালের মধ্যে দ্রুত গতির বুলেট ট্রেনের ৫০৮ কিলোমিটারের প্রকল্প শেষ হওয়ার কথা। নানা কারণে প্রকল্প পিছিয়ে যেতে পারে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: ‘প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় কিছুটা উত্তেজনা রয়েছে’, বলছেন সেনাপ্রধান

বুলেট ট্রেন প্রকল্পের কাজ ভালই এগোচ্ছে বলে জানান রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান। তাঁর কথায়, ‘‘বেশ কিছু জায়গায় জমি সংক্রান্ত বিষয়ে সমস্যা রয়েছে। তা ছাড়াও করোনার কারণেও প্রকল্পের সমস্যা হচ্ছে। ৩ থেকে ৬ মাসের মধ্যে এই সমস্যারও সমাধান হয়ে যাবে।”

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন