• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কাল পর্যন্ত চিদম্বরমকে গ্রেফতার করতে পারবে না ইডি, নয়া নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

chidambaram
সিবিআই হেফাজতে পি চিদম্বরম। দিল্লিতে, সোমবার। ছবি- পিটিআই।

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমকে আগামী কাল, বুধবার পর্যন্ত গ্রেফতার করতে পারবে না এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টরেট (ইডি)। মঙ্গলবার এই নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা এই মুহূর্তে রয়েছেন সিবিআই হেফাজতে।

গত সপ্তাহে সিবিআই তাঁকে গ্রেফতার করে। কিন্তু ইডির গ্রেফতারি থেকে সুরক্ষা চেয়ে আদালতে আবেদন করেছিলেন চিদম্বরম। মঙ্গলবার শীর্ষ আদালতে শুনানির সময় চিদম্বরমের আইনজীবীর দল প্রশ্ন তোলে, ইডির অভিযোগের সারবত্তা নেই। কারণ, সংশ্লিষ্ট আইনটি তখনও তৈরিই হয়নি, অভিযোগ অনুযায়ী, যে সময়ে ওই অপরাধটি হয়েছিল। সোমবার চিদম্বরম দাবি করেন, তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা চার্জগুলি সংবাদমাধ্যমের কাছে ফাঁস করে দিয়েছে ইডি।

এ দিন ইডির অফিসারদের সঙ্গে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর প্রশ্নোত্তরের প্রতিলিপি জমা দেওয়ার আবেদন জানান চিদম্বরমের আইনজীবীরা। তাঁদের দাবি, ওই প্রতিলিপি থেকেই প্রমাণ করা যাবে, বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতাকে সঠিক ভাবে প্রশ্ন করা হয়নি আর তিনিও কিছুই এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেননি। ও দিকে ইডির দাবি, তাঁরা ৭৩ বছরের নেতার কাছ থেকে স্বীকারোক্তিও পেয়ে গিয়েছেন।

ও দিকে, চিদম্বরমের পরিবারের তরফে অভিযোগ করা হয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকার প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বিরুদ্ধে ‘হিংস্র, অপরীক্ষিত এবং অপ্রমাণিত’ অভিযোগ করছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা একটি মেসেজে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পরিবারের তরফে লেখা হয়েছে, “সরকারের উদ্দেশ্য হল পি চিদম্বরমকে অপমান এবং হেনস্থা করা। সংবাদমাধ্যমও সেই চেষ্টার বিরুদ্ধে তাদের স্বাধীনতা ধরে রাখতে পারেনি।’’

চিদম্বরমের বিরুদ্ধে তদন্তকারী সংস্থাগুলির অভিযোগ, তিন‌ি তদন্তে সহযোগিতা করছেন না। তাই তাঁকে আরও বেশি প্রশ্ন করার জন্য আরও কিছু দিন হেফাজতে রাখা প্রয়োজন। আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীকে তিন বার জেরা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন- গণধর্ষিতাকেই শাস্তি! বিহারে মাথা কামিয়ে ঘোরানো হল গ্রামে​

আরও পড়ুন- দেশে আর গণতন্ত্র নেই, চিদম্বরমের গ্রেফতারির নিন্দা করে বললেন মমতা​

বিচারপতি আর ভানুমতি এবং এ এস বোপান্নার বেঞ্চের কাছে চিদম্বরমের পক্ষে বর্ষীয়ান আইনজীবী কপিল সিব্ব‌ল আবেদন জানান, তদন্তকারী সংস্থাকে নির্দেশ দেওয়া হোক, তা যাতে গত বছরের ১৯ ডিসেম্বর ও এই বছরের ১ এবং ২১ জানুয়ারি চিদম্বরমকে করা প্রশ্নোত্তরের প্রতিলিপি আদা‌লতে জমা দেয়।

চিদম্বরমের বিরুদ্ধে অভিযোগ, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী থাকার সময় ২০০৭ সালে বিদেশ থেকে ৩০৫ কোটি টাকার তহবিল পাওয়ার জন্য আইএনএক্স মিডিয়াকে ছাড়পত্র দিয়েছিলেন তিনি। বিনিময়ে তাঁর ছেলে কার্তি চিদম্বরমের সংস্থাকে বড় অঙ্কের ঘুষ দেয় আইএনএক্স মিডিয়া। যদিও চিদম্বরম ও তাঁর ছেলে কার্তি সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

এই ব্যাপারে চিদম্বরম ও তাঁর ছেলের নাম জানিয়েছেন আইএনএক্স-এর যুগ্ম প্রতিষ্ঠাতা পিটার মুখোপাধ্যায় ও ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়। তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তাঁরা তাঁদের মেয়ে শিনা বোরাকে হত্যা করেছেন। এই মুহূর্তে তাঁরা জেলে রয়েছেন।

গত মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে চিদম্বরমের কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। তার পরই বুধবার সন্ধ্যায় আচমকাই তিনি হাজির হন কংগ্রেসের সদর দফতরে। তার দেড় ঘণ্টার মধ্যেই গ্রেফতার হন তিনি।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন