যৌনহেনস্থার অভিযোগ প্রত্যাহার করতে রাজি ছিল না ২৩ বছরের দলিত কলেজছাত্রী। সেই অপরাধে তাঁকে প্রকাশ্য দিবালোকে পাথর দিয়ে মাথা থেঁতলে হত্যা করা হল মধ্যপ্রদেশের সিওনি-তে।

সোমবার ভোপাল থেকে ৩৭০ কিলোমিটার দূরে সিওনিতে কলেজে যাওয়ার পথে তাঁর ওপর হামলা চালানো হয়। নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসু গভর্নমেন্ট কলেজের সামনেই বাইক নিয়ে অপেক্ষা করছিল অনিল মিশ্র নামের দুষ্কৃতী। এই কলেজেই পড়তেন ওই ছাত্রী। কলেজের সামনে আসতেই  চুলের মুঠি ধরে মারধরের পর একটি পাথর দিয়ে তাঁর মাথা থেঁতলে দেয় অনিল।  

ভরদুপুরে এই নৃশংস ঘটনায় স্থানীয় মানুষজন হকচকিয়ে যান। তাঁরা এসে কলেজছাত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু আঘাত ছিল গুরুতর, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই মারা যায় সে।  

আরও পড়ুন: বিহারে মহিলাকে নগ্ন করে রাস্তায় প্যারেড করালো জনতা

মৃত কলেজছাত্রীর গ্রামেরই বাসিন্দা অনিল। তার বিরুদ্ধে কিছুদিন আগেই যৌনহেনস্থার অভিযোগ এনেছিলেন এই দলিত ছাত্রী। সেই যৌনহেনস্থার অভিযোগ প্রত্যাহার করতে তাঁকে চাপ দেওয়া হচ্ছিল। কিন্তু কলেজছাত্রী তাতে রাজি না হওয়াতেই  চরম পথ বেছে নেয় অনিল। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। জেরায় সে নিজের দোষ কবুলও করেছে বলে মধ্যপ্রদেশ পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: এফআইআরের বয়ান হুবহু এক! ‘ভুয়ো সংঘর্ষ’ নিয়ে প্রশ্নের মুখে যোগীর পুলিশ

(কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী, গুজরাত থেকে মণিপুর - দেশের সব রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে আমাদের দেশ বিভাগে ক্লিক করুন।)