• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

নিজস্বীর নেশায় ডুবল ৮ পড়ুয়া

Selfie
সেই নিজস্বী। ছবি ফেসবুক থেকে

সন্ধ্যে সাড়ে ছ’টা নাগাদও ফেসবুকে ‘লাইভ’ এসেছিলেন বন্ধুরা মিলে। নৌকোয় ভাসতে ভাসতে এক জনের জন্মদিন পালন করছিলেন সবাই। হুল্লোড় করতে গিয়ে খেয়াল করেননি কখন নৌকোটি এক দিকে হেলে পড়েছে। এর কয়েক মিনিটের মধ্যে নৌকো ডুবে নাগপুরের ভেনা লেকে তলিয়ে যান ওই পড়ুয়ারা। সাঁতরে পাড়ে উঠে আসেন দুই মাঝি। কোনও মতে বেঁচে যান এক পড়ুয়াও। পরে উদ্ধার হয়েছে তিন যুবকের মৃতদেহ। বাকি পাঁচ জনের সন্ধানে তল্লাশি চলছে।

পুলিশ সূত্রের খবর, গত কাল নাগপুরের কাছে ভেনা লেকে পিকনিক করতে এসেছিল পড়ুয়াদের দলটি। প্রত্যেকেরই বয়স কুড়ি থেকে পঁচিশের মধ্যে। দু’জন মাঝিকে রাজি করিয়ে নৌকো নিয়ে মাঝনদীতে চলে গিয়েছিলেন তাঁরা। নৌকোয় ছিল মোট ১১ জন। কিছু দূর যাওয়ার পর ‘ফেসবুক লাইভ’ শুরু করে সবাই মিলে। সঙ্গে চলছিল দেদার নিজস্বী তোলা। নদীতে থাকতে থাকতেই সন্ধ্যে নামে। এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, ভিডিও তোলার জন্য সবাই নৌকোর এক দিকে চলে আসায় সেটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে হেলে পড়ে। চোখের সামনে নৌকাটি ডুবে জলে পড়ে যান সবাই। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে ফোন করেন তিনি। স্থানীয় এক ডুবুরি জলে ঝাঁপিয়ে পড়ে কোনওমতে উদ্ধার করেন এক পড়ুয়াকে। পুলিশ জানিয়েছে, জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী, স্থানীয় মৎস্যজীবী ও ডুবুরিদের সাহায্যে খোঁজা হচ্ছে বাকিদের। সোমবার সকাল অবধি চলেছে তল্লাশি।

নিজস্বীর নেশায় মৃত্যুর ঘটনা ক্রমশ বাড়ছে দেশ জুড়ে। চলতি বছরের গোড়ায় তামিলনাড়ুর কোয়ম্বত্তূরে নিজস্বী তুলতে গিয়ে চলন্ত ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু হয় ২১ বছরের এক ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ার। ওড়িশার গজপতি জেলায় পাথরের উপর দাঁড়িয়ে নিজস্বী তুলতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নদীতে পড়ে ডুবে মৃত্যু হয় বছর পঁচিশের এক যুবকের। গত বছর কানপুরে নিজস্বী তোলার সময় গঙ্গায় পড়ে প্রাণ হারায় ছয় পড়ুয়া।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন