• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

থর মরুভূমিতে মিলল পৌনে ২ লক্ষ বছরের প্রাচীন নদীখাত

Evidence of Lost River found in Thar Desert, that ran 1,72,000 years ago
প্রতীকী ছবি।

সিন্ধু সভ্যতা তো এই সে দিনের কথা। রাজস্থানের থর মরুভূমির বুক চিরে ওই নদী বয়ে যেত প্রায় ১ লক্ষ ৭২ হাজার বছর আগে! সম্প্রতি জার্মানির ‘ম্যাক্স প্লাঙ্ক ইনস্টিটিউট ফর দি সায়েন্স অব হিউম্যান হিস্ট্রি’র গবেষকেরা সেই হারানো নদীর খাতের সন্ধান পেয়েছেন।

জার্মান সংস্থাটির সহযোগী, কলকাতার ‘ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ’ (আইআইএসইআর) এবং তামিলনাড়ুর অন্না বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের প্রাথমিক অনুমান, এই নদীর অববাহিকা জুড়ে গড়ে উঠেছিল প্রাচীন প্রস্তর যুগের সভ্যতা।

সম্প্রতি ‘কোয়াটার্নারি সায়েন্স রিভিউজ’ পত্রিকায় যৌথ গবেষকদলের প্রবন্ধটি প্রকাশিত হয়েছে। সেখানে বিকানেরের থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার দূরে নল কোয়ারি এলাকায় ওই প্রাগৈতিহাসিক নদীখাতের সন্ধান মেলার তথ্য রয়েছে। রয়েছে, প্যালিওলিথিক জনগোষ্ঠীর উপস্থিতির প্রমাণও।

ম্যাক্স প্লাঙ্ক ইনস্টিটিউটের গবেষক জিমবব ব্লিঙ্কহর্ন জানিয়েছেন, শুকিয়ে যাওয়া নদীখাতটি ওই এলাকার প্রাগৈতিহাসিক ইতিহাস সম্পর্কে তাঁদের ধারণা দিয়েছে। সমীক্ষক দলের সদস্য, অন্না বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হেমা অচ্যুতন বলেন, ‘‘আধুনিক লুমিনেসেন্স ডেটিং পদ্ধতির সাহায্যে আমরা জানতে পেরেছি ১ লক্ষ ৪০ হাজার বছর আগেও নদীটি জীবিত ছিল। তার পরে ধীরে ধীরে তা হারিয়ে যায়।’’

আরও পড়ুন: এ বারের ম্যাচ বাঁচানো কঠিন ক্যাপ্টেন ইমরানের, বলছে তামাম পাকিস্তান

প্রসঙ্গত, গত বছর ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ‘ইসরো’র একটি সমীক্ষাতেও থর মরুভূমিতে প্রায় ৬ হাজার বছরের পুরনো নদীখাতের অস্তিত্বের কথা বলা হয়েছিল। ‘নেচার’ জার্নালে প্রকাশিত সেই রিপোর্টে বলা হয়, সিন্ধু সভ্যতার সময় হরিয়ানা থেকে পাকিস্তানের চোলিস্তান মরুভূমি পর্যন্ত একটি শুকিয়ে যাওয়া নদীখাতের অস্তিত্ব মিলেছে। ওই নদীর দু’পাশে কালিবঙ্গান, রাখিগড়হির মতো সভ্যতা গড়ে উঠেছিল। ভূতাত্ত্বিক ভাবে খ্রিস্টপূর্ব আড়াই হাজার বছর পর্যন্ত এই নদীর অস্তিত্ব পাওয়া গিয়েছে। তারপর তা শুকিয়ে যায়।

আরও পড়ুন: পরীক্ষায় সফল ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী ‘নাগ’, ডিআরডিও-কে শুভেচ্ছা রাজনাথের

তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে ওই ঘটনার প্রায় ১,০০০ বছর পরে ঋগ্বেদে সরস্বতী নদীর বর্ণনা দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু নয়া আবিষ্কৃত নদীটি অনেক বেশি প্রাচীন। ব্লিঙ্কহর্নের মতে, প্রাগৈতিহাসিক যুগে আফ্রিকা মহাদেশ থেকে ভারতে মানব (হোমো স্যাপিয়েনস) পরিযানের ক্ষেত্রে সম্ভবত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল নল কোয়ারির হারিয়ে যাওয়া ওই নদীর।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন