তাদের চুরি করে পালানোর ধরন দেখে অভিষেক বচ্চন অভিনীত ‘ধুম’ ছবির কথা মনে পড়ে যেতে বাধ্য। শহরতলির বেশ কয়েকটি এটিএমে পর পর লুট চালিয়ে গুজরাত পুলিশের জালে তেমনই এক দুষ্কৃতী চক্র।

পুলিশ সূত্রে খবর, শহরতলি বা ফাঁকা জায়গায় অবস্থিত এটিএম থেকেই টাকা লুটের পরিকল্পনা করত দলটি। এর জন্য অত্যাধুনিক পদ্ধতির কাজে লাগাত তারা। কোন এটিএমে লুট চালানো হবে, তা ঠিক করা হত গুগল ম্যাপের সাহায্যে।

এটিএমে ঢোকার আগে মুখোশ এবং দস্তানা পরে নিত ওই দুষ্কৃতীরা। ভিতরে পা রেখে সবার আগে সিসিটিভি ক্যামেরাগুলিকে নষ্ট করে দেওয়া হত। তবে লুট সেরে পালানোর পদ্ধতিটিই ছিল সবচেয়ে অভিনব। এক তদন্তকারীরা জানান, পর পর দু’টি অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নামে পুলিশ। তদন্তকারীরা দেখেন, তারা যে গাড়িটিতে করে চুরি করতে আসত, চুরির পরে পুলিশের চোখে ধুলো দিতে সেটিকে একটি চলন্ত ট্রাকের ভিতরে ঢুকিয়ে নিত ওই দুষ্কৃতীরা!

একটি বোলেরো গাড়ি করে চুরি করতে আসত দুষ্কৃতীরা। যে সব রাস্তা দিয়ে দুষ্কৃতীরা আসত তা খতিয়ে দেখতে গিয়ে তদন্তকারীরা দেখেন, বেশ কয়েকটি জায়গায় রীতিমতো উধাও হয়ে যায় গাড়িটি। এখানেই প্রথম খটকা লাগে তদন্তকারীদের। এমনকি টোল প্লাজাতেও দেখা যায়নি গাড়িটিকে। সেখান থেকেই তদন্তকারীদের সন্দেহ হয় যে ওই গাড়িটি লুকিয়ে ফেলতে একটি বড় ট্রাকের ব্যবহার করা হচ্ছিল।

সম্প্রতি হরিয়ানার মেওয়াটেও এই ধাচে বেশ কয়েকটি ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ফলে দলটি সেখানকারই বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করছে পুলিশ।