জাল অভিনন্দনের ছবি, প্রচার পদ্মের
সেনাদের ভোট-প্রচারে ব্যবহারে নির্বাচন কমিশন যে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন, এই সব মোদী-ভক্তদের কানে তা পৌঁছনোর কথা নয়।
fake photos of abhinandan varthaman

বাঁ দিকে আসল অভিনন্দন বর্তমান, পাশে জাল। আসলের ঠোঁটের নীচে জড়ুল আছে, নকলের নেই। আবার জাল অভিনন্দনের গালে জড়ুল আছে, আসলের নেই।

সেই হ্যান্ডল-বার গোঁফ। মাথায় টুপি, চোখ ঢেকেছে রোদ-চশমা। গলায় টি-শার্টের কলারের নীচে জড়ানো গেরুয়া স্কার্ফে জ্বল জ্বল করছে পদ্ম— বিজেপির নির্বাচনী প্রতীক। 

একের পর এক মোদী-সমর্থক সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ছবি পোস্ট করে দাবি করেছেন— ‘ইনি উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান, যিনি শুধু যে বিজেপির সমর্থনে নেমেছেন তাই নয়, মোদীকে প্রধানমন্ত্রী করার জন্য পদ্মফুলে ভোটও দিয়েছেন। ইনি বলেন, মোদীর চেয়ে ভাল প্রধানমন্ত্রী কেউ হতেই পারেন না।’ সঙ্গে আবেদন, ‘জেহাদি ও কংগ্রেসিদের কাছে এই বার্তা ছড়িয়ে দাও, যারা কখনও কোনও সেনাকে জীবিত উদ্ধার করে আনতে পারেনি।’

সেনাদের ভোট-প্রচারে ব্যবহারে নির্বাচন কমিশন যে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন, এই সব মোদী-ভক্তদের কানে তা পৌঁছনোর কথা নয়। তার চেয়েও বড় কথা— এই ছবিটি অভিনন্দন বর্তমানের বলে যে দাবি করা হচ্ছে, খতিয়ে দেখলে বোঝা যায়, সেটিও একেবারেই অসার। ছবির মাথা এবং চোখ ঢাকা লোকটির সঙ্গে অভিনন্দনের মিল কেবল গোঁফে। উইং কম্যান্ডারের ঠোঁটের নীচে বাঁ দিকে যে জড়ুলটি রয়েছে, সেটি এঁর নেই। আবার এই লোকটির বাঁ গালে যে জড়ুল রয়েছে, অভিনন্দনের তা নেই। ছবির লোকটি অভিনন্দনের চেয়ে বেশ মোটাসোটাও। তা ছাড়া বিমান বাহিনীর নিয়ম-কানুন অনুযায়ী উইং কমান্ডার অভিনন্দন কোনও দলের হয়ে মাঠে নামতেই পারেন না। কোনও দলের কর্মী হিসেবে প্রচারের প্রশ্নও নেই। কংগ্রেস জানিয়েছে, এই ধরনের জাল ছবি ব্যবহার করে ‘বেআইনি প্রচারের জন্য’ তারা সোশ্যাল সাইট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

নির্বাচনী নির্ঘণ্ট

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের ফল

  • সক্রিয় রাজনীতি থেকে অবসর নিচ্ছি না। রাহুল প্রধানমন্ত্রী হলে তাঁর দিকেই বসব।

  • author
    এইচ ডি দেবগৌড়া জেডিএস নেতা

আপনার মত